মিঠুকে বাঁচাতে দুই দিনব্যাপী বিশেষ আয়োজন নাটুকের

Natuke
ad

জাগরণ ডেস্ক: প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ও দুইটি কিডনি হারিয়ে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়া সদস্য ফরহাদ হোসাইন মিঠুকে বাঁচাতে দুই দিনব্যাপী নাট্য আয়োজন করতে যাচ্ছে তারুণ্যদ্দীপ্ত নাট্যদল নাটুকে। রাজধানীর বেইলি রোডের নাটক সরণির মহিলা সমিতি ভবনের ড. নীলিমা ইব্রাহিম মিলনায়তনে আগামী ১২ ও ১৩ জুলাই চলবে নাটুকের এই আয়োজন।

দুই দিনব্যাপী আয়োজনে রয়েছে নাট্যকর্মী মিঠুর কিডনি ট্রান্সপ্ল্যান্টেশনের সাহায্যার্থে নাটক প্রদর্শনী, ‘নাটুকে প্রণোদনা পদক-২০১৮’ এবং আলোচনা অনুষ্ঠান। এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন অ্যাডভোকেট সানজিদা খানম এমপি।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন- বীর মুক্তিযুদ্ধা ও স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের প্রতিষ্ঠাতা সাইদুর রহমান প্যাটেল, আইটিআইএর সম্মানিক সভাপতি নাট্যজন রামেন্দু মজুমদার, সাবেক রাষ্ট্রদূত ওয়ালি উর রহমান, শিল্পী সবিহ উল আলম, নাট্যজন লাকী ইনাম, সাবেক রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ কামালউদ্দিন, শিল্পী কামাল পাশা চৌধুরী, বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনের সেক্রেটারি জেনারেল কামাল বায়েজিদ এবং নাট্যজন খোরশেদুল আলম।

১২ জুলাই বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সোয়া ৭টায় বিশ্বখ্যাত নাট্যকার মলিয়্যের রচিত, অরূপ রুদ্র রূপান্তরিত, অসীম দাশ নির্দেশিত দর্শক নন্দিত কমেডি নাটক ‘বিয়ে বিড়ম্বনা’ নাটকের ১০০তম প্রদর্শনী হবে। শুক্রবার ১৩ জুলাই, সন্ধ্যা ৭টায়, মার্ক ক্যামোলতি রচিত আল নোমান অনূদিত ও নির্দেশিত কমেডি নাটক ‘ঠাকুর ঘরে কে রে…!’ নাটকের ৫০তম প্রদর্শনী হবে।

নাটক দুটির বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন আল নোমান, হান্নান সাগর, মনি, শ্যামল, মেরিন, খোকন, সজীব, মুন, মাহবুব,পল্লব ও আরিফ। প্রদর্শনী শেষে উপস্থিত অতিথিরা কিডনি রোগাক্রান্ত ফরহাদ হোসাইন মিঠুর হাতে সংগৃহীত অর্থ প্রদান করবেন।

১ বছর আগে তিনি হঠাৎ অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন সাংবাদিক, সমাজকর্মী ও নাট্যভিনেতা মিঠু। চিকিৎসক পরিক্ষা-নিরিক্ষা করে জানান, তার দুটো কিডনিই কাজ করছে না। সপ্তাহে দু’দিন ডায়ালাইসিস করাতে হবে। আর স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে হলে কিডনি প্রতিস্থাপন করতে হবে। তার জন্য দরকার পঁচিশ লাখ টাকা।

আজীবন দেশ ও মানুষের জন্য কাজ করে যাওয়া সৎ নীতিবান এ মানুষটি কোথায় পাবে এতো টাকা। তার পরিবারের পক্ষেও সম্ভব না বিশাল এ টাকার ভার বহন করা। তবে চাইলে সকলে মিলে মিঠুর জীবন বাঁচানো সম্ভব। আমরা যদি সকলে একটু সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেই তাহলে হয়তো বেঁচে যাবে এ মানুষটি। পিতৃহারা হবে না মিঠুর অবুঝ সাড়ে পাঁচ বছরের ফুটফুটে কন্যা সন্তানটি।

পরিবারের তিন ভাই-বোনের মধ্যে ফরহাদ হোসাইন মিঠু একমাত্র উপার্জনকারী ব্যক্তি। বৃদ্ধ বাবা-মায়ের সংসারে রয়েছে স্ত্রী ও কন্যা সন্তান।

মিঠুর জীবন রক্ষায় শুভাকাক্ষী, সহযোদ্ধা ও সমাজের মহানুভব ব্যক্তিসহ দেশ-বিদেশের সকল মানুষের কাছে সাহায্য কামনা করেছেন তার পরিবার।

ad