ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটে কাল বাস না চালানোর ঘোষণা

Bus
ad

জাগরণ ডেস্ক: ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে আগামীকাল সোমবার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বাস না চালানোর ঘোষণা দিয়েছেন পরিবহন মালিক শ্রমিকরা।

চলমান যানজট নিরসনের দাবিতে রবিবার (১৩ মে) বাস মালিক সমিতি ও বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন যৌথভাবে এ ধর্মঘট ডেকেছে।

সোমবার ধর্মঘটের মধ্যে এ যানজট নিরসন না হলে পরদিন (মঙ্গলবার) থেকে প্রতিদিন বেলা ১২টা থেকে দুপুর ৩টা পর্যন্ত যাত্রীবাহী কোনো বাস না চালানোরও ঘোষণা দেন পরিবহন মালিক শ্রমিকরা।

আন্তঃজেলা বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কফিল উদ্দিন এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে রেলওয়ে ওভারপাস নির্মাণের কারণে বেশ কিছুদিন ধরে ওই এলাকায় যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। তবে গত কয়েকদিন এ যানজট মহিপাল ছাড়িয়ে কুমিল্লা ও চট্টগ্রামে গিয়ে ঠেকেছে। এতে যাত্রীদের সময়ের অপচয়ের পাশাপাশি আমরা আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছি। তাই এ সংকট নিরসনে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

গত বুধবার (৯ মে) রাত ১২টা থেকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ফেনীর ফতেহপুর এলাকায় নির্মাণাধীন রেলওয়ে ওভারপাসের দক্ষিণে চট্টগ্রামের বারইয়ারহাট এবং উত্তরে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলা সদর ছাড়িয়ে উভয় দিকে অন্তত ৮০ কিলোমিটার এলাকায় যানজট রয়েছে। এ অবস্থায় কার্যত অচল হয়ে পড়েছে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক। আজ রোববার (১৩ মে) বেলা ১২টা পর্যন্ত এ যানজট ছাড়েনি। ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানবাহনে বসে থেকে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছেন যাত্রী ও চালকরা।

পাঁচ থেকে ছয় ঘণ্টায় ঢাকা-চট্টগ্রাম যাতায়াত করা গেলেও এখন তা ১৫ থেকে ১৭ ঘণ্টায় গিয়ে ঠেকেছে। এতে নির্দিষ্ট সময়ে নির্ধারিত স্থানে পৌঁছাতে না পারায় গন্তব্যের পথ পরিবর্তন করে উল্টোপথে ফিরে আসারও ঘটনা ঘটছে।

হাইওয়ে পুলিশ বলছে, ফেনীর ফতেহপুর এলাকার লেভেল ক্রসিংয়ের ওভারপাস নির্মাণকাজের জন্য এ যানজট। তবে যাত্রী ও গাড়িচালকদের অভিযোগ, হাইওয়ে পুলিশের ও ফেনী পুলিশের চাঁদাবাজির কারণে এ ভোগান্তি। তাদের ভষ্য, পুলিশ যানজট নিরসনের নামে চাঁদাবাজি করছে।

ad