তিন জেলায় ‘বন্ধুকযুদ্ধে’ নিহত ৩

tangail-gunfight-1-dead
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: দেশের তিন জেলা টাঙ্গাইল, যশোর এবং বগুড়ায় ‘বন্ধুকযুদ্ধে’ তিনজন নিহত হয়েছে।  এরমধ্যে ধর্ষণের পর কিশোরী ও তার মায়ের মাথা ন্যাড়া করে দেয়া সেই তুফান সরকারের বড় ভাইও রয়েছে। 

বৃহস্পতিবার (১২ জুলাই) দিবাগত রাত থেকে শুক্রবার (১৩ জুলাই) ভোরের মধ্যে এসব ‘বন্ধুকযুদ্ধের’ ঘটনা ঘটে।

টাঙ্গাইল:

টাঙ্গাইল সদর উপজেলায় র‍্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মো. আফজাল (৩৫) নামের এক মাদক বিক্রেতা নিহত হয়েছে।

শুক্রবার (১৩ জুলাই) ভোর ৫টার দিকে সদর উপজেলার বেগুনটাল গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত আফজাল ওই গ্রামের আব্দুল করিমের ছেলে।

এ সময় ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশী পিস্তল, পাঁচ রাউন্ড গুলি, একটি ম্যাগাজিন, ২০০ বোতল ফেনসিডিল, ১০৪২ পিছ ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় র‌্যাবের দুই সদস্য আহত হয়েছেন।

যশোর:

যশো‌রের চৌগাছায় রতন (২৭) না‌মে এক যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। পুলিশের দাবি, দুই দল সন্ত্রাসীর মধ্যে বন্ধুকযুদ্ধের সময় গুলি লাগায় তার মৃত্যু হয়েছে।

শুক্রবার (১৩ জুলাই) ভোরে চৌগাছা-যশোর সড়কের কয়ারপাড়া বাজারের পাশে এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ এক‌টি ওয়ান শুটারগান, এক রাউন্ড গু‌লি ও এক প্যা‌কেট ইয়াবা উদ্ধার করে।

বগুড়া:

বগুড়ায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ধর্ষণের পর কিশোরী ও তার মায়ের মাথা ন্যাড়া করে দেয়া সেই তুফান সরকারের বড় ভাই এবং মাদক বিক্রেতা পুতু মিয়া (৪৫) নিহত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১২ জুলাই) দিবাগত ৩টার দিকে ভাটকান্দি ব্রিজ এলাকায় মাদক ব্যবসাকে কেন্দ্র করে দুই দল মাদক বিক্রেতার মধ্যে এই বন্ধুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে আগ্নেয়াস্ত্র ও ইয়াবা উদ্ধারের কথা জানিয়েছে পুলিশ।

নিহত পুতু মিয়ার বিরুদ্ধে বগুড়া সদর ও শিবগঞ্জ থানায় পাঁচটি মাদক মামলা রয়েছে। সে জেলার তালিকাভুক্ত একজন শীর্ষ মাদক বিক্রেতা বলে জানান জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সনাতন চক্রবর্তী।

ad