বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ উৎক্ষেপণের প্রস্তুতি আবারও শুরু

Waiting, increased, 24 hours,
ad

জাগরণ ডেস্ক: দেশের প্রথম স্যাটেলাইট ‘বঙ্গবন্ধু- ১’ এর উৎক্ষেপণ শেষ মুহূর্তে কারিগরী জটিলতায় আটকে গেছে। তাই আরও ২৪ ঘণ্টা পেছানোর পর উৎক্ষেপণের প্রস্তুতি আবারও শুরু হয়েছে ফ্লোরিডার কেনেডি স্পেস সেন্টারে।

শুক্রবার (১১ মে) বাংলাদেশ সময় দিবাগত রাত ২টা ১৪ মিনিটে স্যাটেলাইটটি উৎক্ষেপণের নতুন সময় নির্ধারণ করা হয়েছে।

গতকাল সব প্রস্তুতি সেরে উৎক্ষেপণের প্রক্রিয়াও শুরু হয়েছিল; কিন্তু মিনিট খানেক আগে সমস্যা দেখা দেয়ায় স্যাটেলাইটটি আর ওড়েনি লঞ্চ প্যাড থেকে। মূলত টি মাইনাস ওয়ান বা একেবারে শেষ মিনিটে লঞ্চিং গ্রাউন্ডের নির্ধারিত ব্যবস্থা ‘অটো অ্যাবোর্ট’ বা স্বয়ংক্রিয় স্থগিতের বার্তা দেয়ায় বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ বহনকারী ফ্যালকন রকেট নির্ধারিত সময়ে উৎক্ষেপণ করা হয়নি।

স্পেসএক্সের ফ্যালকন-৯ রকেটে করে বৃহস্পতিবার ভোররাত ৩টা ৪৭ মিনিটে বাংলাদেশের প্রথম স্যাটেলাইট (কৃত্রিম উপগ্রহ) উৎক্ষেপণের কথা ছিলো। পরে সময় আরও ১৫ মিনিট বাড়িয়ে ৫টা ২ মিনিটে উৎক্ষেপণের কথা বলা হয়। তবে ৫টা ৭ মিনিটে উৎক্ষেপণের স্থগিতের কথা জানায় স্পেসএক্স।

উৎক্ষেপণ স্থগিত হওয়ার পর এক টুইটে স্পেসএক্স জানিয়েছে, রকেট ও পেলোড ভালো অবস্থায় রয়েছে। শুক্রবার ব্যাপআপ ডে তে ৪টা ২১ মিনিটে (ফ্লোরিডা সময়) স্যাটেলাইটটি উৎক্ষেপণের জন্য দল কাজ করছে।

এই উৎক্ষেপণ নিয়ে চিন্তার কিছু নেই বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়।

নিজের ভেরিফাইড ফেসবুক পেজে এক পোস্টে তিনি লিখেছেন, উৎক্ষেপণের শেষ মুহূর্তগুলো কম্পিউটার দ্বারা সম্পূর্ণ স্বয়ংক্রিয়ভাবে নিয়ন্ত্রিত হয়। হিসেবে যদি একটুও এদিক সেদিক পাওয়া যায়, তাহলে কম্পিউটার উৎক্ষেপণ থেকে বিরত থাকে। আজ যেমন নির্ধারিত সময়ের ঠিক ৪২ সেকেন্ড আগে নিয়ন্ত্রণকারী কম্পিউটার উৎক্ষেপণের সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসে। স্পেসএক্স সবকিছু পরীক্ষা নিরীক্ষা করে আগামীকাল একই সময়ে আবারও আমাদের প্রথম কৃত্রিম উপগ্রহ বহনকারী রকেটটি উৎক্ষেপণের চেষ্টা চালাবে। যেহেতু এই ধরণের বিষয়ে কোনো ঝুঁকি নেয়া যায় না, সেহেতু উৎক্ষেপণের মোক্ষম সময়ের জন্য অপেক্ষা করা খুবই সাধারণ বিষয়, চিন্তিত হওয়ার কিছু নেই।

ad