রাজীবের ২ ভাইকে ১ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণের নির্দেশ

Rajiv, hand grabbing, 2 bus drivers, arrested,
ad

জাগরণ ডেস্ক: রাজধানীতে দুই বাসের রেষারেষিতে হাত হারানোর পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যাওয়া তিতুমীর কলেজের শিক্ষার্থী রাজীব হাসানের দুই ভাইকে ১ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

মঙ্গলবার (৮ মে) বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী ও বিচারপতি একেএম জহিরুল হকের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আাদালতে রাজীবের দুই ভাই মেহেদী হাসান ও আবদুল্লাহ তার খালা জাহানারা পারভীন ও মামা জাহিদুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

বিআরটিসি কর্তৃপক্ষ ও স্বজন পরিবহনের মালিককে ৫০ লাখ টাকা করে পরিশোধ করতে বলা হয়েছে। এক মাসের মধ্যে ৫০ লাখ টাকা পরিশোধ করে হাইকোর্টে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে। এই মামলার পরবর্তী শুনানি আগামী ২৫ জুন ধার্য করা হয়েছে।

ক্ষতিপূরণের এ টাকা রাজীবের খালা জাহানারা বেগম ও তাদের ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদের ছেলে কাস্টমস কর্মকর্তা ওমর ফারুকের যৌথ অ্যাকাউন্টে জমা হবে। মতিঝিলে সোনালী ব্যাংকের মূল শাখায় ব্যাংক অ্যাকাউন্টটি খোলার নির্দেশ দেন আদালত।

গত ৩ এপ্রিল বিআরটিসির একটি দোতলা বাস ও স্বজন পরিবহনের একটি বাসের পাশাপাশি চাপায় ডান হাত হারান রাজীব। বিআরটিসি বাসে রাজীব দাঁড়িয়ে যাচ্ছিলেন এবং তার ডান হাতটি সামান্য বাইরে ছিল।

পেছনে থেকে হঠাৎ করে আসা স্বজন পরিবহনের একটি গাড়ি বিআরটিসি বাসের গা ঘেঁষে ওভারটেক করার সময় রাজীবের হাত চাপা পড়ে। এতে তার ডান হাতের কবজির উপর থেকে ছিঁড়ে যায়। মাথায় গুরুতর আঘাতের পাশাপাশি মস্তিষ্কেও আঘাত পান তিনি। চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেলের আইসিইউতে ১৬ এপ্রিল মধ্যরাতে রাজিব মারা যান।

রাজিবের বাবা-মা কেউ বেঁচে নেই। তিন ভাইয়ের মধ্যে তিনি সবার বড় ছিলেন। পড়ালেখার পাশাপাশি একটি প্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার টাইপ করে তিনি নিজের এবং ছোট দুই ভাইয়ের খরচ চালাতেন।

ad