সৌদির উদ্দেশ্যে ঢাকা ছাড়ল প্রথম হজ ফ্লাইট

ad

জাগরণ ডেস্ক: সরকারি ব্যবস্থাপনার ৪১৯ জন হজ যাত্রী নিয়ে সৌদি আরবের জেদ্দায় রওনা হয়েছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের প্রথম হজ ফ্লাইট। এর মাধ্যমে বাংলাদেশ থেকে এ বছরের হজ ফ্লাইট শুরু হলো।

শনিবার (১৪ জুলাই) সকাল ৭টা ৫৫ মিনিটে ফ্লাইটটি জেদ্দার উদ্দেশ্যে ঢাকা ছাড়ে। বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী এ কে এম শাহজাহান কামাল ও ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান বিমানবন্দরে উদ্বোধনী ফ্লাইটে হজযাত্রীদের বিদায় জানান।

সৌদির সঙ্গে চুক্তি অনুসারে বাংলাদেশ থেকে এবার ১ লাখ ২৬ হাজার ১৯৮ জন হজ করতে পারছেন। এরমধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৬ হাজার ১৯৮ জন এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১ লাখ ২০ হাজার জন যাবেন।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স জানায়, প্রথম দিনে হজ ফ্লাইট বিজি-৩০১১ বেলা ১১টা ৫৫ মিনিটে, বিজি-৫০১১ বিকাল ৩টা ৫৫ মিনিটে এবং শিডিউল ফ্লাইট বিজি-০০৩৫ রাত ৮টা ৪৫ মিনিটে জেদ্দার উদ্দেশে ঢাকা ছাড়বে। এ বছর চট্টগ্রাম থেকে ৯টি এবং সিলেট থেকে ৩টি হজ-ফ্লাইট পরিচালনা করা হচ্ছে।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স আরও জানিয়েছে, প্রথমবারের মতো হজ যাত্রীদের টিকিট কেনার পর যাত্রার তারিখ পরিবর্তনে ১০০ মার্কিন ডলার বা সম পরিমাণ টাকা এবং যাত্রা বাতিলের ক্ষেত্রে ২০০ মার্কিন ডলার বা সম পরিমাণ টাকার বাড়তি মাসুল আদায়ের বিধান চালু করা হয়েছে। ঢাকা থেকে জেদ্দা প্রতি ফ্লাইটের উড্ডয়নকাল হবে আনুমানিক ৭ ঘণ্টা।

হজ ফ্লাইট ও শিডিউল ফ্লাইটে মোট ৬৩ হাজার ৫৯৯ (ব্যালটি ও নন-ব্যালটি) জন ধর্মপ্রাণ মুসলমান হজ পালনে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সে জেদ্দা যাবেন। এই হজ যাত্রীদের ঢাকা-জেদ্দা-ঢাকা রুটে পরিবহনের জন্য বিমানের ৪টি নিজস্ববোয়িং ৭৭৭-৩০০ ইআর উড়োজাহাজ প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

প্রত্যেক হজযাত্রী বিনামূল্যে সর্বাধিক ২ (দুই) পিছ ৪৬ (ছেচল্লিশ) কেজি মালামাল বিমানে এবং কেবিন ব্যাগেজে ৭ (সাত) কেজি মালামাল সঙ্গে নিতে পারবেন। কোনো অবস্থাতেই প্রতি পিছ ব্যাগেজের ওজন ২৩ (তেইশ) কেজি হবে না।

প্রত্যেক হজযাত্রীর জন্য ৫ (পাঁচ) লিটার জমজমের পানি ঢাকা/চট্টগ্রাম/সিলেট নিয়ে আসা হবে এবং হাজী সাহেবানরা ঢাকা/চট্টগ্রাম/সিলেট ফেরত আসার পর তাদেরকে তা প্রদান করা হবে। কোনো অবস্থাতেই হাজীরা সাথে করে বিমানে পানি বহন করতে পারবেন না।

যেকোনো ধারালো বস্তু যেমন ছুরি, কাঁচি, নেইল কাটার, ধাতব নির্মিত দাঁত খিলান, কান পরিষ্কারক, তাবিজ ও গ্যাস জাতীয় বস্তু যেমন অ্যারোসল এবং ১০০ (এমএল)-এর বেশি তরল পদার্থ হ্যান্ড ব্যাগেজে বহন করা যাবে না এবং কোনো প্রকার খাদ্য সামগ্রী সঙ্গে নেয়া যাবে না।

ad