ছাত্রলীগ না করায় হল থেকে বের করে দেয়ার অভিযোগ

Bangladesh Agricultural University
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: ছাত্রলীগ না করায় ময়মনসিংহে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের কর্মী আফসানা আহমেদ ইভাকে হল থেকে বের করে দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ঘটনার প্রতিবাদে ১৭ ঘন্টা অনশন করেছেন ইভা। তিনি বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় কৃষি অনুষদের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী। ইভার অভিযোগ, ছাত্রলীগ না করা এবং মিছিলে না যাওয়ার জন্য তাকে ছাত্রলীগের বড় আপুরা বেডিংসহ হল থেকে বের করে দিয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মিয়া মো. রুবেল বলেছেন, ইভার অভিযোগ ভিত্তিহীন। সে প্রভোষ্ট ও বড়দের সাথে অশোভন আচরণ করায় তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এখানে ছাত্রলীগের কিছু না।

হল থেকে বের করে দেয়ার প্রতিবাদে ইভা আজ সকাল সাড়ে ৮টায় বেগম রোকেয়া হলের সামনে আমরণ অনশনে বসেন।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর আতিকুর রহমান বলেন, খবর পেয়ে সকাল ৯টায় তার বিষয়টি দেখার কথা বলেই তাকে অফিসে নিয়ে যান। তাকে অভিযোগ দিতে বলেছি।

পরে দুপুর সোয়া ২টায় ইভা ফের রোকেয়া হলের প্রধান ফটকে আমরণ অনশনেব সেন। খবর পেয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক প্রফেসর ডক্টর জাকির হোসেন ও রোকেয়া হলের ভারপ্রাপ্ত প্রভোষ্ট ড মোশফিকুল ইসলাম অনশনস্থলে আসেন।
তারা ইভাকে হলের প্রভোষ্টের কক্ষে নিয়ে আলোচনা করেন। তদন্ত কমিটি গঠনের আশ্বাস দিলে বিকাল পৌনে ৪টায় অনশন ভঙ্গ করেন ইভা।

এদিকে, বেলা ১২টার দিকে সিনিয়র ও জুরিয়র শিক্ষার্থীরা রোকেয়া হলের সামনেই ইভাকে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারী দাবি করে তার প্রতিবাদে মানবন্ধন করেন ।

মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারী পুর্বা, জোতি, ইরা বলেন, ইভা বেয়াদপ। সে প্রভোষ্ট ম্যামের সাথেও দুর্ব্যবহার করেছেন। সিনিয়র মানে না। সহপাঠীদের সাথেও সে খারাপ আচরণ করে। এজন্য তাকে আপাতত হেলথ কেয়ার সেন্টারে সিট দেয়া হয়েছিল। তাকে বের করা হয়নি।

ইভার অভিযোগ, ছাত্রলীগ না করা ও তাদের মিছিলে না যাওয়ার অপরাধে বাকৃবি ছাত্রলীগের ভাইস প্রেসিডেন্ট সিনফি রোকেয়া হলের ছাত্রলীগ কর্মী স্বর্না, ইলা ও শিলারা তাকে বেডিংসহ সকালে হল থেকে বের করে দিয়েছেন। এরপরেই তিনি আমরণ অনশন শুরু করেন।

ad