জাবিতে দুই অনুষদের ডিন নিয়োগের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

JU conference
ad

জাবি প্রতিনিধি: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান ও আইন অনুষদের ডিন নিয়োগের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ।

বৃহস্পতিবার (১৫ মার্চ) বেলা সাড়ে ১১টায় সমাজবিজ্ঞান অনুষদের শিক্ষক লাউঞ্জে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সংবাদ সম্মেলনে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের সভাপতি ও সাবেক উপ-উপাচার্য আবুল হোসেন লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন।

লিখিত বক্তব্যে তিনি নেপালে বিমান দুর্ঘটনায় নিহতদের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করে বলেন, সমাজবিজ্ঞান অনুষদের নির্বাচিত ডিন বর্তমান উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আমির হোসেন এবং আইন অনুষদের নিয়োগপ্রাপ্ত ডিন বর্তমান কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক শেখ মনজুরুল হককে ভর্তি পরীক্ষার জন্য উপ-উপাচার্য ও কোষাধ্যক্ষ পদে আসীন থাকার পরেও ডিন হিসাবে নিয়োগ দেয়া হয়। কিন্তু এখনো ভর্তি কার্যক্রম শেষ হয়নি।তাহলে কেন রাতের অন্ধকারে তাদের অভ্যাহতি দেয়া হলো।

আবুল হোসেন বলেন, প্রথা অনুযায়ী নির্বাচিত ডিন পদত্যাগ করেন। কিন্তু তাকে অব্যাহতি দেয়ার নজির নেই। সমাজবিজ্ঞান অনুষদে বহু পদে আসীন থাকায় ইতোমধ্যে বিতর্কিত অধ্যাপক ড. রাশেদা আখতারকে তল্পিবাহক ডিন হিসাবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। আবার আইন অনুষদে সহকারী অধ্যাপক রবিউল ইসলামের পদন্নোতি আটকে রেখে তার ন্যায়সঙ্গত অধিকার থেকে বঞ্চিত করে অধ্যাপক বশির আহমেদকে ডিন পদে নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

শিক্ষক সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক অধ্যপক ড. ফরিদ আহমেদ বলেন, নিয়মবহির্ভূতভাবে অধ্যাপক ড. আমির হোসেনের মতো একজন সম্মানিত ও নির্বাচিত ডিনকে এভাবে অব্যাহতি দেয়া নীতিবিরুদ্ধ ও অনৈতিক। আইন অনুষদে সুযোগ থাকার পরেও অন্য বিভাগ থেকে ডিন নিয়োগ দেয়া শুধুই স্বজনপ্রীতির বহিপ্রকাশ।

অধ্যাপক শাহেদুর রশিদ বলেন, অনির্বাচিত ভিসি নির্বাচিত ডিনকে অব্যাহতি দিতে পারেন না।

সংবাদ সম্মেলনে এই সামন্ততান্ত্রিক আচরণের তীব্র নিন্দা জানানো হয় এবং আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে সমাজবিজ্ঞান ও আইন অনুষদের ডিন নিয়োগ সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করা না হলে উপাচার্যের বিরুদ্ধে কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ারি দেয়া হয়।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক ফরিদ আহমেদ, অধ্যাপক শাহেদুর রশিদ, অধ্যাপক আওলাদ হোসেন, সহযোগি অধ্যাপক হোসেন আরা, ড. মুহম্মদ ছায়েদুর রহমান, নাজমুল হাসান তালুকদার, জনাব শাহজাহান ও আরো অনেকে।

উল্লেখ্য, নতুন নিয়োগপ্রাপ্ত ডিন বশির আহমেদ ও রাশেদা আখতার “বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ” এর প্রতিনিধি ছিলেন। উপাচার্য প্যানেল নির্বাচনকে কেন্দ্র করে তারা ‘বঙ্গবন্ধুর আদর্শের শিক্ষক সমাজ’ নামের নতুন প্যানেল গড়ে তোলেন এবং নির্বাচনে বশির আহমেদ সাধারণ সম্পাদক ও রাশেদা আখতার সহ-সভাপতি নির্বাচিত হন।

ad