ইমলামপুরে বিএনপির সেক্রেটারি পদ পেলেন আ.লীগে

জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলা বিএনপির সেক্রেটারি কীভাবে আওয়ামী লীগে ঢুকেছে এমন প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়েছেন জামালপুর সংরক্ষিত আসনের মহিলা এমপি হোসনে আরা।

গত শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) বিকালে জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলা আ.লীগের ত্রি-বার্ষিকী সম্মেলনে উপজেলা বিএনপি'র সাধারণ সম্পাদক মাকছুদুর রহমান আনছারীকে উপজেলা আ.লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক করায় ক্ষুব্ধ হয়ে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এমন প্রশ্ন করেন তিনি।

ইসলামপুর আসনের এমপি উপজেলা আ.লীগের সভাপতি ও  ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খান দুলালের সভাপতিত্বে স্থানীয় জনতা মাঠে অনুষ্ঠিত ওই সম্মেলনে সাংসদ হোসনে আরা আরও বলেন, জামায়াত-বিএনপির নেতাকর্মীরা কোনোভাবেই  যাতে আ.লীগের কমিটিতে স্থান না পায়, সেদিকে আমাদের সজাগ থাকতে হবে।

এ সময় নিজেকে উপজেলা আ.লীগের সভাপতি পদে প্রার্থী ঘোষণা করে সম্মেলন বিষয়ে তাঁর সঙ্গে কোনো ধরনের যোগাযোগ করা হয়নি মর্মে অভিযোগ করেন সাংসদ হোসনে আরা। তিনি বলেন, 'আমি সভাপতি পদে প্রার্থী হয়ে কোনো দোষ করেছি কি-না? প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় আমি সভাপতি পদে প্রার্থী হয়েছি। আমাকে সম্মেলনের ডেলিকেট কার্ড দেওয়া হয়নি। কোনো কিছু বলাও হয়নি। এই সম্মেলনে আমাকে হেয়প্রতিপন্ন করা হয়েছে।'

সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন আ.লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী। বিশেষ অতিথি ছিলেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম এমপি, সাংস্কৃতিক সম্পাদক বাবু অসীম কুমার উকিল এমপি, উপাধ্যক্ষ রেমন্ড আরেং প্রমুখ।



উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. আব্দুস ছালামের সঞ্চালনায় সম্মেলন উদ্বোধন করেন জেলা আ.লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট মুহাম্মদ বাকী বিল্লাহ, প্রধান বক্তা ছিলেন জেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফারুক আহম্মেদ চৌধুরী।

পরে সাংসদ হোসনে আরা তার প্রার্থিতা প্রত্যাহার করায় প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় আ.লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি আগামী তিন বছরের জন্য উপজেলা আ.লীগের সভাপতি পদে এমপি ফরিদুল হক খান দুলাল এবং সাধারণ সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট আব্দুস ছালামের নাম ঘোষণা করেন।

উল্লেখ্য, মাকছুদুর রহমান আনছারী উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হিসেবে ২০১৪ সালে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়ে দলীয় মনোনয়ন পেয়েছিলেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ওই মনোনয়ন না টেকায় তিনি  নির্বাচনে অংশ নিতে পারেননি। পরবর্তীতে তিনি আওয়ামী লীগে ভিড়েন।