শিশু ধর্ষণ, মীমাংসার জন্য আটকে রাখা হলো পরিবারকে

মেহেরপুর সদর উপজেলার বারাদী শিমুলিয়া গ্রামে গলায় হাসুয়া ধরে ৯ বছরের একটি শিশুকে ধর্ষণ করার অভিযোগে দৌলত হোসেন (৬৫) নামে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা করেছেন ওই শিশুর বাবা।


রবিবার (১০ অক্টোবর) বিকেল ৩টার দিকে মেহেরপুর সদর থানায় মামলাটি দায়ের করেন ওই শিশুর বাবা।


ওই শিশুর হতদরিদ্র দিনমজুর বাবা জানান, শুক্রবার (৮ অক্টোবর) জুমার নামাজের সময় বাড়ির সামনে আমার মেয়ে খেলা করছিল। তখন আমার প্রতিবেশী দৌলত হোসেন তাকে ডেকে নিয়ে মুখ চেপে ধরে পাশের একটি বেগুন ক্ষেতে নিয়ে ধর্ষণ করেন। এরপর কথাটি না জানানোর জন্য তিনি আমার মেয়ের গলায় হাসুয়া ধরে মেরে ফেলার হুমকি দেন।


পরে আমি জুমার নামাজ পড়ে এসে বিষয়টি জানতে পারি। তখন মেয়েকে নিয়ে মেহেরপুর সদর থানায় আসতে চাইলে গ্রামের স্থানীয় মাতব্বররা আমাকে ও আমার পরিবারকে আটকে রেখে মিমাংসার জন্য চাপ দেন। শনিবার সন্ধ্যায় আমার মেয়ের রক্তক্ষরণ শুরু হলে তাকে মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করি। এছাড়া মেহেরপুর সদর থানায় মামলা করি।


মেহেরপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ দারা খান জানান, এ বিষয়ে মেহেরপুর সদর থানায় একটি মামলা হয়েছে। ডাক্তরি রিপোর্ট হাতে এলেই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।