কোম্পানীগঞ্জের যন্ত্রনায় আমাদের ঘুম নেই: হুইপ স্বপন

জাতীয় সংসদের হুইপ ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন বলেছেন, একটা সামান্য কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা, তার মধ্যে বসুরহাট পৌরসভা। সেটার যন্ত্রনায় আমাদের ঘুম নেই, রাত নেই, দিন নেই, আমাদের ঘুম হারাম হয়ে গেছে। পুরো নোয়াখালীর রাজনীতিকে ধ্বংস করছে এই কোম্পানীগঞ্জের রাজনীতি।

শনিবার (২০ নভেম্বর) নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। দিনব্যাপি নোয়াখালী জিলা স্কুল মাঠে এ প্রতিনিধি সভা অনুষ্ঠিত হয়।

তিনি বলেন, নোয়াখালী জেলা কমিটির অধীনে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা। জেলা আওয়ামী লীগ কোম্পানীগঞ্জের বিষয়ে সিন্ধান্ত নিয়ে কেন্দ্রীয় নেতাদের জানাবে।

সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার চিকিৎসার বিষয়ে তিনি বলেন, বিএনপির অনেক আইনজীবী আছেন তারা আদালতে দ্বারস্থ হতে পারেন। দেশের আইন সবার জন্য সমান, আদালত সম্পূর্ণ স্বাধীন। আদালত যদি নির্দেশনা দেয় সরকার একশত বার বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠাবে। কিন্তু আইন তা পারমিট করে না। উনার অসুস্থতাকে নিয়ে রাজনীতি করছে বিএনপি। বেগম জিয়ার মুক্তি অথবা চিকিৎসা চান না বিএনপি। বিএনপি বরং বেগম খালেদা জিয়ার অসুস্থতাকে নিয়ে অপরাজনীতি করার চেষ্টা করছে।

তিনি আরও বলেন,আইন সবার জন্য সমান, তারপরও  সাবেক প্রধানমন্ত্রী, সিনিয়র সিটিজেন ও একজন রাজনীতিবিদ হিসেবে বেগম জিয়াকে একজন কাজের বুয়াসহ কারাগারে থাকার সুযোগ করে দেওয়া হয়েছিল। এরপর করোনা মহামারি দেখা দিলে বিশেষ আদেশে বাসায় এনে রাখা হয়। এখন তারা রাতে বেলায় আমাদের কাছে এসে মানবিক আবেদন করছেন। প্রধানমন্ত্রী ও সংসদের নেত্রীর কাছে মানবিক আবেদন করছেন, আবার তারাই রাজপথে নেত্রীর বিরুদ্ধে বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছেন। মানবিকতা কাকে বলে সেটা কি বিএনপির কাছে নেত্রী বা আওয়ামী লীগকে শিখতে হবে?

জেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক অধ্যক্ষ আনম খায়রুল আনম চৌধুরী সেলিমের সভাপতিত্বে এবং জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ন-আহ্বায়ক শহিদ উল্লাহ খান সোহেলের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী এমপি, অর্থ পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক বেগম ওয়াসিকা আয়েশা খান এমপি, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক হারুনুর রশিদ, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক বেগম ফরিদুন্নাহার লাইলী, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক ড. সেলিম মাহমুদ প্রমুখ।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, নোয়াখালী-১ আসনের সাংসদ এইচএম ইব্রাহিম, নোয়াখালী-৩ আসনের সাংসদ মামুনুর রশিদ কিরণ, নোয়াখালী-৬ আসনের সাংসদ আয়েশা ফেরদৌস, সংরক্ষিত মহিলা আসনের সাংসদ বেগম ফরিদা খানম, সাবেক সাংসদ মোহাম্মদ আলী, প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারি মো. জাহাঙ্গীর আলম, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ডা. এ কে এম জাফর উল্যাহ,জেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আবদুল ওয়াদুদ পিন্টু, একেএম সামছুদ্দিন জেহান।  প্রতিনিধি সভায় জেলার ৯ উপজেলার পৌরসভা, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ের প্রাায় ৫ হাজার আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী অংশ নেন।