‘দেশের স্বার্থে ব্যবসায়ীরা লোকসান দিয়ে পণ্য আমদানি করছে’

চট্টগ্রাম চেম্বারের সভাপতি মাহবুবুল আলম বলেন, বিশ্ববাজারে দাম বাড়া সত্ত্বেও দেশের স্বার্থে ব্যবসায়ীরা লোকসান দিয়ে হলেও পণ্য আমদানি করছে। ভোগ্যপণ্যের

দাম বিশ্বব্যাপী বাড়ছে। ইউক্রেন-রাশিয়া থেকে থেকে ডাল, গমজাতীয় খাদ্যশস্য ৩০ শতাংশ আমদানি হয়। যুদ্ধের কারণে বর্তমানে টালমাটাল অবস্থা।


সোমবার (১৬ মে) আগ্রাবাদের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের বঙ্গবন্ধু কনফারেন্স হলে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের বাজার স্থিতিশীল রাখতে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।


ব্যবসায়ী নেতাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, যে দামে কিনেছেন তার ওপর সামান্য লাভ করে পণ্য বিক্রি করে দিতে হবে। দুই-একজনের লোভের কারণে দেশের সব ব্যবসায়ীর ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে। দুই-একজনের কারণে সবাই দুর্ভোগে পড়েছেন। আপনারা যারা মার্কেটের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক আছেন, দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করলে অভিযানের দরকার নেই। দুই একজন ব্যবসায়ীর কারণে সবার ইমেজ খারাপ হবে তা হতে দেয়া হবে না। সরকার ভোজ্যতেলের দাম নির্ধারণ করে দিয়েছে। নির্ধারিত মূল্যেই ভোজ্যতেল বিক্রি করতে হবে।


তিনি আরো বলেন, চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে আসা জাহাজের প্রায় সব পণ্য সারাদেশে চলে যায়। সারাদেশে নজরদারি বাড়াতে হবে। সরকারের বিরুদ্ধে গিয়ে নয় বরং আইন মেনে ব্যবসা করতে হবে। সরকার নির্ধারিত দামে পণ্য বিক্রি করতে হবে। পবিত্র ঈদুল আযহার আগে ভোজ্যতেলের সরবরাহ বাড়াতে হবে। এর জন্য বড় আমদানিকারকদের পাশাপাশি ছোট ছোট আমদানিকারকদের সুযোগ দিতে হবে।


এসময় উপস্থিত ছিলেন ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের উপ পরিচালক ফয়েজ উল্লাহ, চেম্বার পরিচালক অহিদ সিরাজ স্বপন, মো. আলমগীর, খাতুনগঞ্জ ট্রেড অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ ছগীর আহমদ প্রমুখ।