এলগার-ককের ব্যাটে ভারতের নাভিশ্বাস

কী দারুণ শুরুটাই না করেছিল ভারত। বিশাখাপত্তনম টেস্টে রোহিত শর্মা আর মায়াঙ্ক আগারওয়ালের ব্যাটে ৫০২ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করেছিল। এরপর দ্বিতীয় দিনে ৩৪ রানেই দক্ষিণ আফ্রিকার ৩ উইকেট ফেলে দিয়েছিল।

তৃতীয় দিনের শুরুতেই ইশান্ত শর্মার দুর্দান্ত এক বলে তারা পেয়ে যায় আরও একটি ব্রেক থ্রু। ১৮ রান করে বিদায় নেন বাভুমা। স্কোর দাঁড়ায় ৬৩-৪। এতে প্রথম টেস্টেই এগিয়ে যাওয়ার স্বপ্ন দেখছিল ভারত।

তবে তাতে বাধ সাদেন ডিন এলগার। এই ওপেনার পঞ্চম উইকেটে ডু প্লেসিকে নিয়ে গড়েন ১১৫ রানের পার্টনারশিপ। ডু প্লেসি ১০২ বলে ৫৫ রান করে অশ্বিনের শিকার হলে ভাঙে জুটি।

এরপর আবার প্রতিরোধ। এবার ডি কককে নিয়ে। ওই প্রতিরোধের মাঝেই ভারতে নিজের প্রথম সেঞ্চুরি তুলে নেন এলগার। তাদের জুটিতে নাভিশ্বাস উঠে ভারত শিবিরে। তাদের জুটি যখন বড় রানের দিকে এগুচ্ছিল তখন আঘাত হানেন জাদেজা।

এই স্পিনার ফেরান ২৮৭ বলে ১৬০ রান করা ডিন এলগারকে। তবে ততক্ষণে অনেক দেরি হয়ে গেছে। দক্ষিণ আপ্রিকা করে ফেলেছে ৩৪২ রান। ডি ককও পৌঁছে গেছেন সেঞ্চুরির কাছে।

শেষ পর্যন্ত ডি কক মেরেই ফেলেন সেঞ্চুরি। যদিও তিনি ইনিংস দীর্ঘায়িত করতে পারেননি। তবে ১১১ রানের মূল্যবান একটি ইনিংস খেলেন। শেষ বিকেলে অশ্বিনের বলে বোল্ড হন তিনি। এরপর ভারনন ফিল্যান্ডারকেও বোল্ড করেন অশ্বিন।

তবে শেষ সময়টা কেশব মহারাজকে নিয়ে পার করে দেন মুতুস্বামী। তৃতীয় দিন শেষে তাদের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৮ উইকেটে ৩৮৫। এখন ১১৭ রানে পিছিয়ে আছে তারা। বৃষ্টি না হলে কাল শুরু হবে চতুর্থ দিনের খেলা।

এই ম্য্যাচে সর্বোচ্চ ৫ উইকেট নিয়েছেন অশ্বিন। এটি তার ২৭তম ৫ উইকেট শিকারের রেকর্ড। এছাড়া দুইটি উইকেট নিয়েছেন রবীন্দ্র জাদেজা।

মন্তব্য লিখুন :