আশরাফুলের যে বিশ্বরেকর্ডটি ভাঙতে পারেননি কেউ

বাংলাদেশ ক্রিকেটের এক মহা নায়ক মোহাম্মদ আশরাফুল। এটা স্বীকার করতে হয়ত কারো সমস্য্যা হবে না। কারণ একসময় বাংলাদেশের ত্রাতা হয়ে দাঁড়াতেন সাবেক অধিনায়ক। এই ছোটখাটো গড়নের মানুষটির হাত ধরেই বাংলাদেশ পেয়েছে বেশ কয়েকটি জয়।

তার মধ্যে অন্যতম অস্ট্রেলিয়াকে প্রথমবার হারানো সেই ঐতিহাসিক ম্যাচটি। বাংলাদেশে ক্রিকেটের একটা কথা হয়ে উঠেছিল এমন যে আশারাফুল খেললেই বাংলাদেশ জিতবে।

২০০১ সালে ওয়ানডে অভিষেক হয় এই তারকার। একই বছর হয় টেস্ট অভিষেক। আর সেই দিনই তিনি গড়েন একটি বিশ্বরেকর্ড। যা কিনা আজও কেউ ভাঙতে পারেনি।

দিনটা ছিল ৬ সেপ্টেম্বর, ২০০১। ওইদিন প্রথমবার টেস্ট জার্সিতে মাঠে নামেন আশরাফুল। আর নেমেই হাঁকান এক সেঞ্চুরি। চামিন্দা ভাসের বলে আউট হওয়ার আগে করেন ১১৪ রান। তিনি বাংলাদেশের দ্বিতীয় খেলোয়াড় যে কিনা টেস্ট অভিষেকে সেঞ্চুরি পান।

এর আগে প্রথম ম্যাচে ১৪৫ রানের ইনিংস খেলেন আমিনুল ইসলাম বুলবুল। আমিনুলের চেয়ে রান কম করলেও একটি দিক থেকে এগিয়ে ছিলেন আশরাফুল। সেটা হলো বয়সে। কারণ ওই ম্যাচ খেলার সময় ১৭ বছর ৬১ দিন বয়স ছিল আশরাফুলের।

ডেবিউ টেস্টে আরও কোনো খেলোয়াড়ই এত কম বয়সে সেঞ্চুরি পাননি। ওই ম্যাচ শেষ হওয়ার ১৮ বছরেও অক্ষত আছে বিশ্বরেকর্ডটি। হয়তো আরও অনেক বছর থাকবে কিংবা খুব দ্রুতই ভেঙে যাবে। তবে আশরাফুল চিরস্মরণীয় হয়েই থাকবেন।

আশরাফুল ২০০৮ সালের পর থেকে জাতীয় দলে নেই। সাম্প্রতিক সময়ে তার নিষেধাজ্ঞা উঠলেও ফর্ম তাকে জাতীয় দলে ফেরার সুযোগ দেয়নি।

মন্তব্য লিখুন :