শাকিব-অপুর তালাক নিয়ে ধুম্রজাল!

joint, shakib-apu, relation
ad

জাগরণ ডেস্ক: শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের পূর্ব নির্ধারিত তারিখ অনুযায়ী তালাকের তৃতীয় ও শেষ শুনানিতে আজ তারা উপস্থিত হননি। ফলে বিধিবদ্ধ সময়সীমার ৯০ দিন উত্তীর্ণ হওয়ায় তাদের তালাক আজ থেকে কার্যকর হওয়ার কথা। কিন্তু এই তালাক নিয়ে এখনও সংশয় রয়েছে বলে দাবি করেছেন, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন অঞ্চল ৩-এর নির্বাহী কর্মকর্তা হেমায়েত হোসেন।

রবিবার (১২ মার্চ) গণমাধ্যমকে হেমায়েত হোসেন তার এই সংশয়ের কথা জানান।

তিনি বলেন, অপু বিশ্বাস দাবি করেছেন শাকিবের আবেদনে যে স্বাক্ষর রয়েছে সেটি শাকিবের নয়। স্বাক্ষরটি শাকিবের কিনা, সেই ব্যাপারে আমরাও নিশ্চিত হতে পারিনি। শাকিব ও তার উকিলকে বেশ কয়েকবার তলব করেও এই ব্যাপারে কোনো সদুত্তর মিলেনি। তাই অপু যদি চ্যালেঞ্জ করেন এবং স্বাক্ষরটি শাকিবের নয় বলে প্রমাণ হয় তবে ডিভোর্সের আবেদনটিই বাতিল হয়ে যাবে।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন অঞ্চল ৩-এর নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, একটি ডিভোর্স কার্যকর করার জন্য যেসব তথ্য ও প্রমাণ দরকার তার অনেক কিছুই শাকিব খান প্রদান করেননি। এটা নিতান্তই নির্ভর করছে অপু বিশ্বাসের ওপর যে তিনি সংসার টিকিয়ে রাখতে চ্যালেঞ্জ বা মামলা করবেন কিনা। আর যদি মেনে নেন এই আবেদন, তবে ডিভোর্স কার্যকর হয়ে গেছে।

পূর্ব নির্ধারিত তারিখ অনুযায়ী ডিভোর্সের তৃতীয় ও শেষ শুনানিতে শাকিব খান ও অপু বিশ্বাস নিজেরা, এমনকি এই দুই পক্ষের প্রতিনিধি হিসেবেও কেউ উপস্থিত না থাকায় স্বাভাবিকভাবেই আইন অনুযায়ী শাকিবের আবেদনের প্রেক্ষিতে তালাক চূড়ান্ত হয়েছে ঢাকাই চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় এই দুই তারকার।

আইনত অবশ্য গত ২২ ফেব্রুয়ারি থেকেই আর স্বামী-স্ত্রী নন তারা। গেল বছরের ২২ নভেম্বর আইনজীবী শেখ সিরাজুল ইসলামের মাধ্যমে অপু বিশ্বাসকে তালাক নোটিশ পাঠান শাকিব খান। নিয়ম অনুযায়ী ওইদিন থেকে তিন মাস অর্থাৎ ৯০ দিন সময় ছিল এই তালাক কার্যকর হতে। সেই হিসাবে গত ২২ ফেব্রুয়ারি পূর্ণ হয়েছিলো ৩ মাস। ফলে তখন থেকেই সাবেক তারকা দম্পতি শাকিব-অপু।

তারপরেও তাদের তালাক নিয়ে শেষ পর্যন্ত যদি কিন্তু থেকে যাচ্ছে শাকিবের স্বাক্ষর তার নিজের কিনা এবং তথ্য-প্রমাণ যথেষ্ট দিতে না পারায়। তাই এই তারকা দম্পতির তালাক সংক্রান্ত নাটক শেষ হয়েও হলো না এখনই শেষ! বাস্তবে তাদের এই পরিস্থিতির শেষ দৃশ্য এখনও বাকি!

ad