আইএসের প্রচার মাধ্যম আমাকে’র প্রতিষ্ঠাতা নিহত

Amak founder
ad

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন জোটের হামলায় ইসলামিক স্টেটের (আইএস) প্রচার মাধ্যম ‘আমাক’ এর প্রতিষ্ঠাতা রাইয়ান মেশাল নিহত হয়েছেন।

সিরিয়ার পূর্বাঞ্চলের দেইর-আল-জোর প্রদেশে তিনি নিহত হয়েছেন বলে বুধবার এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে জানিয়েছেন তার ভাই।

রাইয়ান মেশালের মৃত্যুর বিষয়ে ইউএস নেতৃত্বাধীন বাহিনী এখনো পর্যন্ত কোনো মন্তব্য করেনি।

প্রকাশিত খবরের বিষয়ে নিরপেক্ষভাবে সত্যতা যাচাই করা সম্ভব হয়নি বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

তবে সিরিয়ার সরকারবিরোধী আন্দোলনকারীরা তার মৃত্যুর খবর প্রচার করেছে। তারা জানিয়েছে, সরকারি বাহিনীর বিমান হামলায় আল-মায়দিন শহরে নিজ বাড়িতে মেশাল ও তার কন্যা নিহত হয়েছেন।

ফেসবুক স্ট্যাটাসে তার ভাই বলেন, ‘‌আমি আনন্দের সঙ্গে জানাচ্ছি যে, জোট বাহিনীর এক বিমান হামলায় আমার বড় ভাই বারা কাদেক শহীদ হয়েছে। যিনি রায়হান মেশাল নামে পরিচিত ছিলেন।’

বিশ্বের বিভিন্ন জায়গায় হামলার জন্য ইসলামি স্টেট ‘আমাক’ এর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোর চ্যানেল ব্যবহার করে হামলার দায় স্বীকার করে থাকে।
যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সাইট মনিটরিং সার্ভিস এর পরিচালক রিটা কিটজা এক টুইটার বার্তায় দেইর-আল-জোর শহরে বিমান হামলায় মেশাল নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে বলে জানিছেন।

কিটজা আরও জানান, ২০১৪ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে ‘আমাক’ আইএসের ‘রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা’ হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে। ‘আমাক’ এর মাধ্যমে আইএস বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলে সংঘটিত অন্তত দুই ডজন হামলার দায় স্বীকার করে।

ইসলামিক স্টেটের যোদ্ধারা সিরিয়ার পূর্বাঞ্চলের বিশাল মরুভুমি এলাকা ও ইরাক সীমান্তের দেইর-আল-জোর প্রদেশের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করে। কিন্তু গত বছর থেকে তাদের নিয়ন্ত্রিত বেশিরভাগ এলাকা হাতছাড়া হয়েছে।

অন্যদিকে যুক্তরাজ্যভিত্তিক পর্যবেক্ষক গোষ্ঠী সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস এক তথ্যে জানিয়েছে, আল মায়াদিনে জোটের বিমান হামলায় আইএস সদস্যদের পরিবারের নারী ও শিশুসহ ১০০ জনেরও বেশি নিহত হয়েছে।

ad