কেউ নিহত বা ধর্ষিত হয়নি, গুজব ছিলো: আ.লীগ কার্যালয় ঘুরে শিক্ষার্থীরা

ad

জাগরণ ডেস্ক: আওয়ামী লীগের ধানমণ্ডি কার্যালয়ে নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনরত ‘কয়েকজন শিক্ষার্থীর লাশ’ রাখা হয়েছে এবং ‘কয়েকজনকে আটকে রেখে ধর্ষণ করা হয়েছে’ বলে গুজব ছড়ানো হয়েছিলো। এর সত্যতা যাচাইয়ে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের দুইটি গ্রুপ পুলিশের সাথে আওয়ামী লীগের পুরো কার্যালয় ঘুরে দেখেছে। এসময় তারা কোন লাশ খুঁজে পায় নি এবং কোন ধর্ষণের ঘটনা ঘটেনি বলে সংবাদ সম্মেলন করে জানিয়েছে।

শনিবার (৪ আগস্ট) সন্ধ্যার আগে আওয়ামী লীগের কয়েকজন কর্মী আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলেন। এরপর আন্দোলনকারীদের পক্ষ থেকে কয়েকজন এসে পুলিশের সঙ্গে পুরো কার্যালয় ঘুরে দেখে। তারপর আওয়ামী লীগের কার্যালয়েই সংবাদ সম্মেলন করেন ওই শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীদের একজন ঢাকা আইডিয়াল কলেজের শিক্ষার্থী কাজী আশিকুর রহমান তূর্য বলেন, দুপুরে নামাজের পর হঠাৎ কিছু লোক এসে বলে, আমাদের চারজন বোনকে আর কজন ছেলেকে আওয়ামী লীগ অফিসে আটকে রাখা হয়েছে। পরে আমাদের একটি অংশ আওয়ামী লীগ অফিসের দিকে চলে আসে। কিন্তু আমরা আওয়ামী লীগ অফিসে এসে দেখলাম, এমন কিছু ঘটেনি।

এর আগে দুপুরে এই গুজব শুনে ধানমণ্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর কার্যালয়ের দিকে শিক্ষার্থীরা এগোলে সংঘর্ষ বাঁধে, বিকাল পর্যন্ত চলে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বেলা দুইটার দিকে ছাত্ররা হঠাৎ করে জিগাতলা মোড় থেকে আসতে থাকে। তখন আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা বাধা দেয়। ছাত্ররা বাধা না মানলে বাক-বিতণ্ডা হয়। ছাত্রছাত্রীরা স্লোগান দিয়ে পার্টি অফিসের দিকে আগালে পার্টি অফিসের নেতা-কর্মীরা ধাওয়া দেয়।

ভিডিও:

ad