জনআস্থা অর্জনে আমরা শতভাগ সফল: সিইসি

Nurul Huda
ad

জাগরণ ডেস্ক: কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠানের মাধ্যমে জনআস্থা অর্জনে আমরা শতভাগ সফল হয়েছি বলে দাবি করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা।

এ নির্বাচন সুষ্ঠু হওয়ায় নিজেদের শতভাগ সফল বলেও দাবি করেন তিনি।

বৃহস্পতিবার ভোটগ্রহণ শেষে বিকাল সোয়া ৫টায় রাজধানীর আগারগাঁওয়ের নির্বাচন কমিশনে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন।

গত ১৫ ফেব্রুয়ারি নুরুল হুদা নেতৃত্বাধীন কমিশন দায়িত্ব নেয়ার পর একটি উপ নির্বাচন, স্থানীয় সরকারের ১৮টি নির্বাচন হয়েছে।

বৃহস্পতিবারই কুমিল্লায় বড় পরিসরে ভোটের আয়োজন করা হয়। এতে বর্তমান ইসি প্রথমবারের মতো আওয়ামী লীগ ও বিএনপি অংশগ্রহণ করে।

ভোটগ্রহণ শেষে নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার, রফিকুল ইসলাম, শাহাদাত হোসেন চৌধুরী ও ইসি সচিব মোহাম্মদ আব্দুল্লাহকে সঙ্গে নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে আসেন সিইসি।

তিনি বলেন,ব্যাপক উৎসাহ ও আনন্দমুখর পরিবেশে সুনামগঞ্জ-২ ও কুমিল্লা সিটি- এ দুটো নির্বাচন হয়েছে।

তবে রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ নির্বাচন হওয়ায় কুমিল্লার ভোটে ছিল সবার নজর। আমরাও শান্তিপূর্ণ, সবার কাছে গ্রহণযোগ্য করতে পদক্ষেপ নিয়েছি এবং সফলভাবে এ ভোট করতে পেরেছি।

সিইসি জানান, সুনামগঞ্জে শান্তিপূর্ণ নির্বাচন হয়েছে। তবে কুমিল্লায় দু-একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ঘটেছে। এ জন্যে দুটি ভোট কেন্দ্র (সরকারি সিটি কলেজ কেন্দ্র এবং চৌয়ারা ইসলামিয়া ফাজিল ডিগ্রি মাদ্রাসা কেন্দ্র) বন্ধ করা হয়েছে।

বর্তমান কমিশন আসার পর থেকে ইসি বলে আসছে, কাজের মাধ্যমে আস্থা অর্জন করবেন তারা। বিশেষ করে কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের ভোট নিয়ে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি বলছে, আস্থা অর্জনের পথে এ নির্বাচন কমিশনের কাছে অগ্নিপরীক্ষা, কঠিন পরীক্ষা।

এ বিষয়ে সিইসি সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেন,আমরা আর পরীক্ষা দিতে চাই না। ছোটবেলা থেকে অনেক পরীক্ষা দিয়েছি। এখন পরীক্ষার বিষয় নয়, কাজ করার সময়। নিষ্ঠা, সততার সঙ্গে কাজ করতে আমরা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। রাজনৈতিক দলগুলো পরীক্ষা নিতে চাইলে গণমাধ্যমকে নেওয়ার পরামর্শ দেন তিনি।

বিএনপির পক্ষ থেকে যেসব অভিযোগ করা হয়েছে তা মাঠ পর্যায়ে তদন্ত করে দেখা হয়েছে বলে জানান সিইসি।

সিইসি বলেন, ভোটে কারা প্রভাব খাটিয়েছে তার সুনির্দিষ্ট তথ্য আমাদের কাছে নেই। তবে যে দুটি কেন্দ্রে অনিয়মের অপচেষ্টা চলেছে তা বন্ধ করে দিয়েছি। এছাড়া যেসব জায়গায় গোলযোগের চেষ্টা করেছে তা কয়েক মিনিটের মোকাবেলা করে তাদের ব্যর্থ করে দিয়েছি।

সিইসি জানান, আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ভোটারদের অসহযোগিতা করেছে, ভোটদানে ক্ষমতাসীনদের সহযোগিতা করেছে-এমন অভিযোগ তদন্ত করে অধিকাংশ অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায়নি।

ad