‘মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের চাকরির বিষয়ে সরকার ভাবছে’

Mozammel Mp
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রী মোজাম্মেল হক বলেছেন, মুক্তিযোদ্ধারা দেশের শ্রেষ্ট সন্তান। কোটা সংস্কারের দাবির প্রেক্ষিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটা কিছুটা কমতে পারে। তবে মুক্তিযোদ্ধার সন্তানরা দেশের সম্মানজনক পদে যাতে চাকরি পায়, সে বিষয়টি নিয়ে সরকার ভাবছে।

শনিবার (১২ মে) দুপুরে কুষ্টিয়ায় যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা রশিদুল আলম আনিসের নামে জেলা পরিষদ বাস্তবায়নাধীন ভেড়ামারা-প্রাগপুর সড়কের উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন।

মোজাম্মেল হক বলেন, বর্তমান সরকার মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী। মুক্তিযোদ্ধারা নিজের জীবন বাজি রেখে বাংলাদেশকে শ্রেষ্ঠ উপহার দিয়ে গেছেন।  তাই তাদের সরকার মুল্যায়ন করতে চায়।

মন্ত্রী আরও বলেন, কোটাবিরোধী আন্দোলন নিয়ে ইতিমধ্যেই যে তথ্য প্রকাশ পেয়েছে, তাতে অন্যদের যে মদদ আছে তার সুস্পষ্ট প্রমাণ আছে। দেশ থেকে বিতাড়িত তারেক জিয়া তাদেরকে উৎসাহিত করেছে। সে এই আন্দেলনকে কিভাবে খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলনে পরিণত করা যায় সেই চেষ্টায় পরিচালিত করেছে।

তিনি বলেন, হতে পারে প্রথম দিকে এই আন্দোলনের উদ্দেশ্য সৎ ছিলো, কিন্তু পরবর্তীতে এটা উদ্দেশ্যমূলক ছিল এবং এই আন্দেলনের মাধ্যমে বিএনপি রাজপথে আসার একটা হীন প্রচেষ্টা চালিয়েছিল।

তিনি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন কোটা না চাইলে থাকবে না। কিন্তু পৃথিবীর অনেক দেশেই এমনকি ভারতেও এবং বৃটিশ আমলেও কোটা পদ্ধতি ছিল। একটি দেশে কোটা থাকা জরুরি। কোটা থাকবে তবে হয়তো সেটা পরিবর্তন হয়ে মেধাবিরা যাতে বেশি সুযোগ পায় সেই ব্যবস্থা হবে।

ad