রবীন্দ্রনাথ বাংলা সাহিত্য সৌধের কালজয়ী প্রতিভা: অর্থমন্ত্রী

Rabindranath, time-honored genius, Finance Minister,
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত বলেছেন, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এমন একজন দার্শনিক চিন্তাবিদ, যিনি বাঙালীর প্রেরণার জায়গা সৃষ্টি করতে পেরেছেন। রবীন্দ্রনাথ ছিলেন বাংলা সাহিত্য সৌধের কালজয়ী প্রতিভা।

মঙ্গলবার (৮ মে) বিকালে কুষ্টিয়ার শিলাইদহ কুঠিবাড়িতে কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসনের আয়োজনে এবং সাংস্কৃতিক মন্ত্রণালয়ের পৃষ্ঠপোষকতায় বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৫৭তম জন্মবার্ষিকীর তিন দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালার উদ্বোধনী দিনের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, বাঙালী জাতি বড় ভাগ্যবান যাদের সঠিক পথের দিশারী হিসেবে পেয়েছেন রবীন্দ্রনাথকে। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ছিলেন সাহিত্য সংস্কৃতির মান্যতার প্রতীক। আর কুষ্টিয়াবাসী হিসেবে তাকে পেয়েছে অন্যভাবে। রবীন্দ্রনাথকে এই চেনা ফুরাবে না।

তিনি বলেন, রবীন্দ্রনাথ ছিলেন আমাদের সব চেয়ে কাছের মানুষ ঘরের মানুষ। বাংলা সাহিত্যের এই কালজয়ী প্রতিভা শিলাইদহের মাটি-হাওয়ার গন্ধে একাকার হয়ে এখানে বসেই নোবেল জয়ী গীতাঞ্জলির অধিকাংশ রচনা করেন। খুব কাছে থেকে দেখেছেন গ্রাম-বাংলার প্রকৃত রূপ।

আবুল মাল আব্দুল মুহিত বলেন, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ছিলেন বাঙালী চেতনার একজন আলোকিত মানুষ। যিনি সাধারণ মানুষের কল্যাণে ভেবেছেন, তাদের কাছে থেকে কষ্ট অনুভব করেছেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই প্রধান অতিথিসহ অন্যান্য অতিথিবৃন্দকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানিয়ে বরণ করে নেন কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসনের ম্যাজিস্ট্রেটগণ। কুঠিবাড়ীর আঙ্গিনায় মঞ্চে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন- ভারপ্রাপ্ত সচিব মোঃ নাসির উদ্দিন আহমেদ।

স্মারক বক্তব্য রাখেন- ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের প্রফেসর ড.আবুল আহসান চৌধুরী। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখবেন কুষ্টিয়া-৪ (খোকসা-কুমারখালী) আসনের সংসদ সদস্য আব্দুর রউফ, তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। ধন্যবাদ জ্ঞাপন করবেন কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক জহির রায়হান।

ad