সিলেটের ‘আতিয়া মহল’ সেনা নিয়ন্ত্রণে; নিহত চার জঙ্গি

brief
ad

আনহার আহমদ সমশাদ, শিববাড়ী, সিলেট থেকে: সিলেটের ‘আতিয়া মহল’ এ টানা ৪ দিনের অভিযানে এক মহিলা ও তিন পুরুষ জঙ্গী নিহত হওয়ার পর আতিয়া মহল সেনাবাহিনী নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে।

রাত ৮টায় ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের এই তথ্য জানানো হয়।

‘আতিয়া মহল’ থেকে একজন নারীসহ চারজন জঙ্গির মৃতদেহ পাওয়া গেলেও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী ও সেনাবাহিনীর ধারণা মতে জঙ্গি মুসা বা বড় মাপের কোন জঙ্গি কি না তা এখনও বলা হয়নি।

চারজনের মধ্যে দুইজন জঙ্গির মৃতদেহ গতকালই পাওয়া যায়। ইতোমধ্যে ওই দুই জঙ্গির মৃতদেহ পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে সেনাবাহিনী।

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ফখরুল আহসান সাংবাদিকদের জানান, “নিহত বাকি দুইজনের গায়ে সুইসাইডাল ভেস্ট লাগানো আছে, আর যে অবস্থায় তারা আছে সেটা খুব ঝুঁকিপূর্ণ। এখন কিভাবে তাদের বের করে আনা হবে সে পরিকল্পনা করবো আমরা।”

“পুরো ভবনটায় যে পরিমাণ বিস্ফোরক আছে তাতে ভবনটা ধ্বংস হয়ে যেতে পারে। তাই দেখে শুনে পদক্ষেপ নিতে হচ্ছে”, বলে জানান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ফখরুল আহসান।

তবে ‘আতিয়া মহল’ এর নিয়ন্ত্রণ সেনাবাহিনীর হাতেই আছে এবং বাড়িটিতে আরও তল্লাশি চলবে বলেও জানান তিনি।

সিলেটের ওই বাড়ি ঘিরে ‘অপারেশন টোয়াইলাইট’ নামে অভিযানটি অব্যাহত রয়েছে। অভিযান শেষ হতে আরও কিছু সময় লাগতে পারে বলে জানাচ্ছেন সেনাবাহিনী।

এর আগে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল সচিবালয়ে সাংবাদিকদের জানান, যেকোনও সময় সিলেটে সন্দেহভাজন জঙ্গিদের বিরুদ্ধে সেনা কমান্ডোদের অভিযান শেষ হবে।

তিনি বলেন, যাতে প্রাণের ক্ষতি না হয় সেজন্য সেনা কমান্ডোরা ধীরে সুস্থে এগুচ্ছেন, ফলে হয়তো সময় বেশী লাগছে।

সিলেটের দক্ষিণ সুরমা এলাকায় আলোচিত বাড়ি ‘আতিয়া মহল’কে ঘিরে বড় সংখ্যায় সেনা কমান্ডোরা অবস্থান নিয়ে অভিযান চালাচ্ছেন। সোমবার সকাল থেকেই বেশ কিছুক্ষণ একটানা গুলি ও বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যায়। এরপর থেকে থেমে থেমে গুলির শব্দও পাওয়া যায়। দুপুর ২টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত বিস্ফোরণের শব্দ বেশি শোনা গেছে।

এছাড়া শনিবার সিলেটে বোমা বিস্ফোরণে পুলিশের দুজন কর্মকর্তাসহ ছয়জন নিহত হবার ঘটনায় মোঘলাবাজার থানায় অজ্ঞাত সংখ্যক ব্যক্তিকে আসামি করে আজ সোমবার মামলা করেছে পুলিশ।

ad