সুনামগঞ্জ জেলা কারাগারে কারারক্ষীর আত্মহত্যা

hanging_dead_body
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: সুনামগঞ্জ জেলা কারাগারে ধৈর্য্য দাস ওরফে আমজাদ হোসেন (২৮) নামের এক কারারক্ষী আত্মহত্যা করেছেন। তাৎক্ষণিকভাবে তার আত্মহত্যার কারণ জানা যায়নি।

শুক্রবার (১১ মে) বিকাল ৪টার দিকে শহরের হালুয়ারগাওঁ এলাকায় কারাগারের চারতলা কোয়ার্টারের নিচতলায় নিজের কক্ষে সিলিং ফ্যানের সাথে রশি ঝুলিয়ে তাতে ফাঁস দিয়ে তিনি আত্মহত্যা করে।

ধৈর্য্য দাস ওরফে আমজাদ হোসেন সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার ঘিলাতুলী গ্রামের দিপেন্দ্র দাসের ছেলে। তিনি ১১ মাস ধরে সুনামগঞ্জ কারাগারে কারারক্ষী হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন।

খবর পেয়ে সদর মডেল থানা পুলিশ ও গণমাধ্যমকর্মীরা ঘটনাস্থলে তার কক্ষে গিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় লাশ দেখতে পান। পরে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ধৈর্য্য দাস ওরফে আমজাদ হোসেনের সঙ্গে সুনামগঞ্জ কারাগারের এক মহিলা কারারক্ষী সাজেদা ইয়াসমিনের সাথে এক বছর ধরে প্রেমের সর্ম্পক তৈরী হয়।

এরই সুবাদে গত এক মাস পূর্বে নোটারি পাবলিকের মাধ্যমে ধৈর্য্য দাস ধর্মান্তরিত হয়ে আমজাদ হোসেন নাম গ্রহণ করে সাজেদা ইয়াসমিনকে বিয়ে করেন এবং কারাগারের চারতলা ভবণের নিচতলায় ন্ত্রীকে নিয়ে বসবাস শুরু করেন।

জেল সুপার মো. আবুল কালাম আজাদ আত্মহত্যার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করলেও আত্মহত্যার কারণ সম্পর্কে তিনি কিছুই জানাতে পারেননি।

সদর থানার এসআই ও তদন্তকারী কর্মকর্তা মো. জালাল উদ্দিন জানান, আমজাদ হোসেনের আত্মহত্যার সঠিক মোটিভ ময়নাতদন্তের পর জানা যাবে।

ad