হাতীবান্ধায় জেএমবির নারী সদস্য গ্রেপ্তার

Hatibandha, JMB, female member, arrest,
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় সাদিয়া আফরোজ নীনা নামের নিষিদ্ধ সংগঠন জেএমবির এক নারী সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এ সময় তার কাছ থেকে সালাফদের ইলমী শ্রেষ্ঠত্ব ইবনে রজব হাম্মুলী (রা.) অনুবাদ করা একটি বই উদ্ধার করা হয়।

বৃহস্পতিবার (৫ এপ্রিল) সন্ধ্যায় তাকে লালমনিরহাট জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়। এর আগে বুধবার (৪ এপ্রিল) রাতে উপজেলার ধুবনী গ্রামের তার নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃত নীনা উপজেলার ধুবনী গ্রামের নুরল ইসলামের মেয়ে। সে রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাব বিজ্ঞান শাখার অনার্স চতুর্থ বর্ষের ছাত্রী বলে নিশ্চিত করেছেন হাতীবান্ধা থানার ওসি ওমর ফারুক।

তাকে গ্রেপ্তারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাবাসাবাদ শেষে বৃহস্পতিবার বিকালে হাতীবান্ধা থানার উপ-পরিদর্শক আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ সাদিয়া আফরোজ নীনার বিরুদ্ধে ১৯৭৪ সালে বিশেষ ক্ষমতা আইনে (১৫(৩)/১৬(২) ধারায়) মামলা দায়ের করেন। নীনাকে গ্রেপ্তারের সময় অজ্ঞাতনামা ১০-১২ জন আসামী পালিয়ে যায় বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে।

থানা পুলিশ জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বুধবার রাত পৌনে ১১টার দিকে লালমনিরহাটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নাসিরুল ইসলামের নেতৃত্বে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল উপজেলার ওই গ্রামে অবস্থিত সাদিয়ার নিজ বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে।

এ সময় লালমনিরহাটের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল-বি) হোসেন শহীদ সরওয়ার্দীসহ হাতীবান্ধা থানা পুলিশও ওই অভিযানে অংশ নেন।

পুলিশ জানায়, আটককৃত সাদিয়ার কাছ থেকে তিনটি মোবাইল সেট উদ্ধার করা হয়। যেখানে মানসিক উত্তেজনাকর ও বিভিন্ন দেশের মুসলিমদের জখমের ছবি, আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহারের ফুটেজ ও বিভিন্ন জঙ্গি নেতাদের ছবি ও তাদের বক্তব্যের ফুটেজ পাওয়া গেছে।

সেই সাথে তার মুঠোফোনে টেলিগ্রাম, অরবিট, অরফক্স নামে তিনটি অ্যাপস (ফিচার) আছে। এসব অ্যাপস ব্যবহার করে ওইসব ছবি ও ভিডিও ফুটেজের মাধ্যমে জঙ্গি সদস্যদের উদ্বুদ্ধ করে অভিযুক্ত সাদিয়া আফরোজ নীনা দেশের অভ্যন্তরে নাশকতা চালানোর পরিকল্পনা করে আসছে বলে অভিযোগ পুলিশের।

পুলিশের দায়ের করা ওই মামলায় আরও বলা হয়, ২০১৫ সাল থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে (ফেসবুক) নিজ নামে মোট তিনটি আইডি খোলে সাদিয়া আফরোজ নীনা। এসব ফেসবুক আইডির মাধ্যমে মোহাম্মদ আনাস, মেহেদী হাসান, এমআরএফ ওরফে সোহেলা রানা নামের ১০-১২ জন জঙ্গি সদস্যের সাথে যোগাযোগ স্থাপন করে দেশের অভ্যান্তরে নাশকতা চালানোর পরিকল্পনা করে সাদিয়া আফরোজ নীনা।

ওই সদস্যদের নিয়ে গোপন বৈঠক হচ্ছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে বুধবার রাতে অভিযান চালিয়ে নিজ বাড়ি থেকে সাদিয়াকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

হাতীবান্ধা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওমর ফারুক বলেন, গ্রেপ্তারকৃত সাদিয়া আফরোজ নীনা নিষিদ্ধ জেএমবি সংগঠনের সদস্য। তার তিনটি মোবাইল ফোনে মানসিক উত্তেজনাকর ছবি ও ফুটেজসহ জঙ্গিদের সাথে যোগাযোগ স্থাপন সংক্রান্ত বিভিন্ন অ্যাপস পাওয়া গেছে।

ad