শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের পরও দাবি আদায়ে রাস্তায় শিক্ষার্থীরা

Jagoran- inactive,, Dhaka, street, students,
ad

জাগরণ ডেস্ক: রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের পরও দুই শিক্ষার্থীকে বাসচাপায় ‘হত্যার’ বিচারসহ নয় দফা দাবিতে এবং নিরাপদ সড়কের দাবিতে পঞ্চম দিনের মতো আন্দোলনে নেমেছে শিক্ষার্থীরা।নিরাপত্তার কারণ দেখিয়ে উধাও হয়ে গেছে গণপরিবহন। তাতে কার্যত অচল হয়ে পড়েছে ঢাকা। 

বৃহস্পতিবার (২ আগস্ট) সকাল থেকে রাজধানীর গাবতলী, মহাখালীসহ আন্তঃজেলা টার্মিনাল থেকে বাস চলাচল বন্ধ রাখে শ্রমিক-মালিকরা। তাদের দাবি নিরাপত্তার অভাবেই তারা বাস চলাচল বন্ধ রেখেছেন। তাতে চরম দুর্ভোগে পড়েছে সাধারণ মানুষ।

মিরপুর-মতিঝিল, মোহাম্মদপুর-সায়েদাবাদ, উত্তরা-মতিঝিল রুটে চলাচলকারী নিয়মিত বাসগুলো সড়কে প্রায় দেখাই যায়নি। রোকেয়া সরণি, প্রগতি সরণি, এয়ারপোর্ট রোড, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ প্রায় ফাঁকা। কয়েকটি বাস চলাচল করছে, যা প্রয়োজনের তুলনায় কম। ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থেকেও মিলছে না বাস ও সিএনজি অটোরিক্সা। যা দুই একটা রিকশা দেখা মিলছে তাতেও ভাড়া খুব বেশি।

নিরাপত্তার কারণ দেখিয়ে আজ দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে সরকার। তারপরও বিভিন্ন সড়কে ইউনিফর্ম পড়েই শিক্ষার্থীদের অবস্থান করতে দেখা গেছে। বৃষ্টি উপেক্ষা করে ব্যানার ফেস্টুন হাতে থাকা শিক্ষার্থীরা শ্লোগানে মুখরিত করে তুলেছে রাজপথ।

রাজধানীর উত্তরায় সড়ক অবরোধ করেছে শিক্ষার্থীরা। উত্তরার আব্দুল্লাহপুর থেকে বিমানবন্দর পর্যন্ত সড়কে অবস্থান নিয়েছে শিক্ষার্থীরা। তারা শাহবাগ মোড়, আসাদগেট, সায়েন্সল্যাব, ফার্মগেট ও মৌচাক এলাকার রাস্তাও অবরোধ করেছে। গতকালের মতো আজও শিক্ষার্থীরা রাস্তায় গাড়ি থামিয়ে কাগজপত্র ও চালকদের লাইসেন্স চেক করছে।

ফাঁকা সড়কে দুয়েকটি গাড়ি চলতে দেখা গেছে। সেগুলোতেও উঠতে হচ্ছে অনেক কষ্ট করে। ফলে নগরবাসীকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।মিরপুর থেকে যাত্রাবাড়ী, উত্তরা, বাড্ডা ও এয়ারপোর্ট, দনিয়া থেকে উত্তরা পর্যন্ত বিভিন্ন সড়কে দুয়েকটি গাড়ি চলছে। সেগুলোতে অনেক ঠেলাঠেলি করে অফিসগামীদের উঠতে হচ্ছে চরম ভোগান্তির মধ্যে।

পুলিশ সূত্রে জানাগেছে, যানবাহনের নিরাপত্তা শঙ্কায় মহাখালী বাস টার্মিনাল থেকে ময়মনসিংহ, টাঙ্গাইল, রংপুর পথের বাসগুলো ঢাকা ছেড়ে যায়নি। এ ছাড়া ঢাকামুখী বাস চলাচলও বন্ধ রয়েছে।

বাস মালিকরা বলছেন, ঢাকার বেশিরভাগ গণপরিবহন যেহেতু ব্যক্তি মালিকানাধীন, তাই মালিকরা লোকসানের আশঙ্কায় এসব পরিবহন বের করেননি পথে।

ময়মনসিংহ থেকে ঢাকাগামী সব ধরনের যাত্রীবাহী বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন ঢাকাগামী সাধারণ যাত্রীরা।

ময়মনসিংহ মোটর মালিক সমিতির বাস বিভাগের সাধারণ সম্পাদক বিকাশ সরকার বলেন, নিরাপত্তার স্বার্থে আজ দিনের বেলা ময়মনসিংহ থেকে ঢাকাগামী সব ধরনের যাত্রীবাহী বাস চলাচল আমরা বন্ধ রেখেছি। পরিবেশ স্বাভাবিক থাকলে রাতের বেলা বাস চলবে।

দক্ষিণবঙ্গগামী সাতক্ষীরা এক্সপ্রেসের ব্যবস্থাপক বোরহান আহমেদ জানান, নিরাপত্তাহীনতার কারণে কোনো বাস ছাড়া হয়নি। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত বাস চলাচল বন্ধ থাকবে।

ad