সারাদেশে ছড়িয়ে পড়েছে আন্দোলন, উত্তাল রাজপথ

Jagoran - narshingdi block
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: রাজধানীতে বাস চাপায় নিহত শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের শিক্ষার্থী দিয়া খানম মিম ও আবদুল করিমের মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনায় রাজধানী ঢাকায় শুরু হওয়া অবরোধ এবং আন্দোলন এখন সারাদেশে ছড়িয়ে পড়েছে।

বৃহস্পতিবার (২ আগস্ট) আন্দোলনের পঞ্চম দিনে দেশের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা প্রতিকূল আবহাওয়া উপেক্ষা করে দেশের বিভিন্ন স্থানে অবরোধ, বিক্ষোভ মিছিল এবং ড্রাইভারদের লাইসেন্স চেক অব্যাহত রেখেছে। জেলা ও স্থানীয় প্রতিনিধিদের পাঠানো রিপোর্টের জেনে নিন বিস্তারিত।

চট্টগ্রাম:

চট্টগ্রামের ওয়াসা মোড়, ষোলশহর এলাকায় নগরীর বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা অবস্থান নিয়ে কর্মসূচি পালন করছে। এর আগে চট্টগ্রামের বিভিন্ন কলেজের শিক্ষার্থীরা মিছিল নিয়ে ওয়াসা মোড়ে আসে। সেখানে অবস্থান নিয়ে শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন যানবাহনের কাগজপত্র পরীক্ষা করে দেখেন।

শিক্ষার্থীদের কর্মসূচি চলাকালে নগরীতে ব্যাপক যানজটের সৃষ্টি হয়। নিরাপদ সড়কের দাবির পাশাপাশি নিরাপদ যানবাহন, ক্ষতিগ্রস্ত দুই ছাত্রের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ ও দোষী ব্যক্তিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানানো হয় কর্মসূচি থেকে।

rajshaki block

রাজশাহী:

রাজশাহী নগরীর সাহেববাজার জিরো পয়েন্টে অবস্থান নিয়ে মানববন্ধনে অংশ নেয়। ‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’, ‘নিরাপদ সড়ক চাই’সহ বিভিন্ন স্লোগান লেখা প্ল্যাকার্ড হাতে মানববন্ধনে দাঁড়িয়ে তারা শিক্ষার্থী হত্যার বিচার এবং সড়কে নিজেদের নিরাপত্তা নিশ্চিতের দাবি জানাচ্ছে।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীসহ সার্বিক নিরাপত্তার স্বার্থে নগরীতে পুলিশি নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে। রাজশাহী মহানগর পুলিশের মুখপাত্র জানিয়েছেন, শিক্ষার্থীদের আন্দোলন শেষ না হওয়া পর্যন্ত পুলিশ তাদের নিরাপত্তা দেবে।

ময়মনসিংহ:

ময়মনসিংহে বৃষ্টি মাথায় নিয়ে বেলা ১১টার দিকে ময়মনসিংহ নগরীর টাউন হল চত্বরে শিক্ষার্থীরা জড়ো হয়ে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেন।

বিক্ষোভ কর্মসূচি পালনকালে শিক্ষার্থীরা সরকারি বেসরকারি গাড়ি আটকে চালকদের লাইসেন্স আছে কিনা, তা পরীক্ষা করে। যাদের লাইসেন্স আছে তাদের যেতে দেয়া হয় এবং যাদের লাইসেন্স নেই তাদের ফেরত পাঠানো হয়। এ সময় শিক্ষার্থীরা সরকারি বেসরকারি, এমনকি বিজিবির গাড়িও আটকে লাইসেন্স পরীক্ষা করে।

হবিগঞ্জ:

হবিগঞ্জে বিক্ষোভ সমাবেশ, মানববন্ধন ও সড়ক অবরোধ করেছে শিক্ষার্থীরা। বেলা ১১টায় শহরে মিছিল করে শিক্ষার্থীরা। পরে বৃন্দাবন সরকারি কলেজের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ করে বিভিন্ন স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থীরা।

এ সময় তারা বিভিন্ন যানবানের চালকদের লাইসেন্স যাচাই করে। সমাবেশের এক পর্যায়ে যানবহনের চালকদের লাইসেন্সসহ ফিটনেস না থাকায় উত্তেজিত হয়ে রাস্তা অবরোধ করে। শিক্ষার্থীরা সরকারের নিকট নিরাপদ সড়ক বাস্তবায়নের দাবি জানায়। একই সময় ভাদৈ ও ধুলিয়াখাল এলাকায় হবিগঞ্জ-শায়েস্তাগঞ্জ আঞ্চলিক সড়ক অবরোধ করে শিক্ষার্থীরা।

টাঙ্গাইল:

নিরাপদ সড়কের দাবিতে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ মিছিল করেছে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। এ সময় তারা বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড ও ফেস্টুন নিয়ে তাদের দাবি প্রদর্শন করেন। এতে করে মহাসড়কে চলাচলকারী সকল যানবাহন বন্ধ হয়ে যায়। রাস্তার দুই পাশে দেখা দেয় দীর্ঘ যানজট।

সকাল থেকে শিক্ষার্থীরা টাঙ্গাইল কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে অবস্থান নেয়। পরে সেখান থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের আশেকপুর বাইপাসে অবরোধ করে।

Jagoran- noakhali block

নোয়াখালী:

নোয়াখালীতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের হাজার হাজার শিক্ষার্থী খণ্ড খণ্ড বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে শহরের কেন্দ্রস্থল মাইজদী টাউন হল চত্বরে জড়ো হন।

পরে বেলা ১২টার দিকে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা একসাথে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে। বিক্ষোভ মিছিলটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণের একপর্যায়ে মাইজদী পুরাতন বাসষ্ট্যান্ড থেকে জিলা স্কুল মোড় পর্যন্ত এক কিলোমিটারব্যাপী সড়ক অবরোধ করে।

শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ চলাকালীন দুপুর ২টার দিকে ছাত্রলীগের কর্মীরা আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের উপর হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ছাত্রলীগের কর্মীরা স্কুল ও কলেজ ড্রেস পরা ছাত্র-ছাত্রীদের মূল সড়ক থেকে সরানোর জন্য শারীরিকভাবে আঘাত ও লাঞ্ছিত করে । এ সময় শিক্ষার্থীরা অলি-গলিতে ডুকে পড়ে।

প্রত্যক্ষদর্শী বিভিন্ন ব্যাবসা প্রতিষ্ঠানের ব্যবসায়ীরা জানায়, শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ চলাকালীন দুপুর ২টার দিকে ছাত্রলীগের কর্মীরা দলীয় শ্লোগান দিয়ে শিক্ষার্থীদের উপর হামলা করে। এ সময় ছাত্ররা দৌড়ে এদিক সেদিক চলে গেলেও ছাত্রীরা লাঞ্ছিত হয়।

কুষ্টিয়া:

স্কুল, কলেজ বন্ধ ঘোষণার পরও কুষ্টিয়া শহরের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শত শত শিক্ষার্থী মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিলে অংশ নেয়।

মজমপুর গেট থেকে মানবন্ধন শেষে বিক্ষোভ মিছিলটি খণ্ড খন্ডভাবে শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে থানা মোড়ে শেষ হয়। বিক্ষোভ মিছিল থেকে “উই ওয়ান্ট জাস্টিজ” শ্লোগানে সারা শহর প্রকম্পিত হয়ে ওঠে। এ সময় শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের সাথে বিভিন্ন শ্রেণির মানুষ একাত্ত্বতা ঘোষণা করেন।

নরসিংদী:

নরসিংদীতে নিরাপদ সড়কের দাবিতে ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ করেছে শিক্ষাথীরা। দুপুর ১২টা থেকে জেলার ভেলানগর এলাকায় বিভিন্ন স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরা এই অবরোধ সৃষ্টি করে।

সৈয়দনগর ইটাখোলার সহ মাহাসড়কের বিভিন্ন অংশে অবরোধ ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে যানচলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এসময় প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা শিক্ষার্থীদের মহাসড়ক থেকে সরিয়ে নেয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু শিক্ষার্থীরা প্রশাসনে আশ্বাসে সন্তুষ্টি না হওয়ায় তারা মহাসড়ক থেকে সরতে রাজি হয়নি।

শিক্ষার্থীদের অবরোধের ফলে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের দুই পাশে প্রায় ১৫ কিলোমিটার এলাকায় যানযটের সৃষ্টি হয়। ভোগান্তিতে পড়তে হয় সড়কে চলাচলকারী যাত্রীদের।

সিরাজগঞ্জ:

সিরাজগঞ্জে দুপুর ১২টার দিকে শহরের বাজার স্টেশন স্বাধীনতা স্কয়ার চত্বরে অবস্হান নেয় বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থীরা। এ সময় বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা ১৬/১৭টি মত ট্রাক ভাঙচুর করে। এ সময় শ্রমিকরা বাধা দিলে উভয়পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

পরে শিক্ষার্থীরা বাজার স্টেশন স্বাধীনতা স্কয়ারে গিয়ে শহরের প্রধান ৫টি সড়ক বন্ধ করে দেয়। এর আগে সকালে ১১টার দিকে শিক্ষার্থীরা শহরের মুজিব সড়ক,চৌরাস্তা, ফজলুল হক রোড, রেলগেট সহ বিভিন্ন রাস্তায় অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করে।

সদর থানার ওসি মোহাম্মদ দাউদ বলেন, শিক্ষার্থীরা শহরের বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে। পরিস্হিতি নিয়ন্ত্রণে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

Jagoran- kishorgonj block

কিশোরগঞ্জ:

জেলার ভৈরব উপজেলার শিক্ষার্থীরা সৈয়দ নজরুল ইসলাম সেতুর টোল প্লাজা এলাকায় রাস্তার মাঝখানে ব্যারিকেড দিয়ে ৩ ঘন্টা ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে এবং নিরাপদ সড়কের দাবিতে বিভিন্ন শ্লোগান দিতে থাকে।

ফলে ঢাকা-সিলেটের যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এক পর্যায়ে ছাত্ররা পুলিশের সহায়তায় বিভিন্ন যানবাহনের কাগজপত্র চেক করে মামলা ও জরিমানা আদায় করে।

ঝিনাইদহ:

নিরাপদ সড়কের দাবিতে জেলার কালীগঞ্জে সাধারণ ছাত্র ঐক্য পরিষদের ব্যানারে মানববন্ধন করেছে শিক্ষার্থীরা। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে বেলা সাড়ে ১১টা পর্যন্ত শহরের মেইন বাসস্ট্যান্ড এলাকায় মানববন্ধন করে তারা। উপজেলার বিভিন্ন স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসার প্রায় ৩০০ শিক্ষার্থী মানববন্ধনে অংশ নেয়। এ সময় তাদের হাতে বিভিন্ন প্লাকার্ড দেখা যায়। নিরাপদ সড়কের দাবিতে ৯ দফা দাবি তুলে ধরেন শিক্ষার্থীরা।

ঝালকাঠি:

ঝালকাঠি প্রেসক্লাবের সামনের সড়কে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা। দাবি পূরণ না হলে শিক্ষার্থীদের এ আন্দোলন চলবে বলেও হুশিয়ারি দেয়া হয়।

এছাড়া খুলনা, বরিশাল, সিলেট, রংপুর, কুমিল্লা, জামালপুর, নেত্রকোনা, দিনাজপুর, গাজীপুর, ফরিদপুর, চাঁপাইনবাবগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে অবরোধের খবর পাওয়া যাচ্ছে।

ad