আবারও ধর্ষণকাণ্ডে ফাঁসল বিজেপি!

Jagoran- rape 1
ad

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: একের পর ধর্ষণকাণ্ডে বিপাকে থাকা ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) এবার আরও একটি ধর্ষণকাণ্ডে ফেঁসে গেছে। এবার ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে দলটির শরীক আরএসএস’র এক নেতার বিরুদ্ধে।

ভারতের মধ্যপ্রদেশের ভোপাল জেলার অরএসএস নেতা অশ্বিনী শর্মার বিরুদ্ধে উঠেছে এই অভিযোগ।

জানাগেছে, অশ্বিনী শর্মা ভোপালে একটি ছাত্রী হোস্টেল পরিচালনা করেন। তার ওই হোস্টেলে রয়েছে অন্তত ৫০ জন নারী ও তরুণী। অভিযোগ ওই হোস্টেলে মেয়েদের আটকে রেখে শারীরিক মানসিক সবরকমের অত্যাচার চালাত অশ্বিনী। লাগাতার মেয়েদের ধর্ষণ করত সে। প্রভাবশালী নেতা হওয়ায় তার বিরুদ্ধে কথাও বলতো না কেউ।

তবে সম্প্রতি এক তরুণী হোস্টেল থেকে পালিয়ে এসে পুলিশের দ্বারস্থ হয়। এরপরই বেরিয়ে আসে একের পর চাঞ্চল্যকর তথ্য। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে গ্রেপ্তার করে অশ্বিনীকে।

পালিয়ে আসা ওই তরুণী জানান, হোস্টেলে মেয়েদের আটকে রেখে জোর করে পর্ন দেখানো হত। তাকে ৬ মাস ধরে লাগাতার ধর্ষণ করা হয়েছে। যে চারজনকে মালিকের পছন্দ হয়েছিল সেই চারজনকে আলাদা বাড়িতে রাখা হতো। তারা যাতে কোনওভাবেই পালিয়ে যেতে না পারে সে ব্যবস্থা করা হয়েছিল। এছাড়া, হোস্টেলের আরও একাধিক নারীকেও ধর্ষণ করেছে অশ্বিনী। তাদের শারীরিক নির্যাতনও করা হতো।

অশ্বিনীর গ্রেপ্তারির পর মধ্যপ্রদেশ কংগ্রেস একটি ভিডিও প্রকাশ করে দাবি করে অশ্বিনী শুধু আরএসএস প্রচারকই নন, স্থানীয় বিজেপি হেভিওয়েটদের ঘনিষ্ঠ। স্থানীয় বিজেপি নেতারা অবশ্য বলছেন, এই ইস্যুতে অকারণে রাজনীতি টেনে আনছে কংগ্রেস।

উল্লেখ্য, সাম্প্রতিক সময়ে বেশকিছু বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ উঠে। এর মধ্যে রয়েছেন বিজেপীর একজন মন্ত্রীও। নতুন করে আরও একটি ধর্ষণ অভিযোগ উঠায় নির্বাচনের আগে এবার বিপাকেই পড়েছে বিজেপি।

ad