কাতারকে সংকট সমাধানে আরব দেশগুলোর ১৩ শর্ত

Qatar, break relation, 4 countries,
ad

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ইরানের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক হ্রাস এবং কাতারভিত্তিক টেলিভিশন চ্যানেল আলজাজিরা বন্ধ এবং তুরস্কের সামরিক ঘাঁটি বন্ধ করে দেয়াসহ মোট ১৩টি শর্তের বিনিময়ে কাতারের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করা ইস্যুর সংকট সমাধানে ১৩টি শর্ত জুড়ে দিয়েছে চার আরব দেশ।

আরব দেশগুলোর মধ্যে চলমান সংকট সমাধানে কুয়েত মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকা পালনের প্রস্তাব দেয়। সেই অনুযায়ী ১৩টি শর্তের তালিকা কুয়েতের মাধ্যমে দোহার কাছে পাঠানো হয়েছে। শর্ত পূরণের জন্য কাতারকে ১০ দিন সময় দেওয়া হয়েছে। এরমধ্যে তা না মানলে শর্তর আর কোনো মূল্য থাকবে না।

কাতারে অবস্থান করা ওই চার দেশের তালিকাভূক্ত সন্ত্রাসীদের হস্তান্তরের কথাও শর্তে উল্লেখ করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে কাতারের পক্ষ থেকে কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে গত সোমবার কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ বিন আবদুল রাহমান আল থানি জানিয়েছেন, অবরোধ তুলে না নিলে সম্পর্কচ্ছেদ করা আরব দেশের সঙ্গে কোনো সমঝোতা নয়।

উল্লেখ্য, ইসলামিক স্টেট (আইএস), আল কায়েদা, মুসলিম ব্রাদারহুডসহ বিভিন্ন সন্ত্রাসী সংগঠনকে ‘মদদ দিচ্ছে’ বলে গত ৫ জুন প্রতিবেশী সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহরাইন, ইয়েমেন ও মিশর কাতারের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্নের ঘোষণা দেয়। সেইসঙ্গে কাতারের সব নাগরিকদের দেশ ছাড়ার নির্দেশও দেয়া হয়।

এমন সিদ্ধান্তের পর বেশ সমস্যায় পড়েছে কাতার। দেশটির শতকরা ৮০ শতাংশ খাবার আমদানিনির্ভর। কিন্তু প্রতিবেশীদের সঙ্গে স্থল ও আকাশপথে যোগাযোগ বন্ধের পর বন্ধ হয়েছে আমদানি। এতে খাবারশূন্য হয়ে পড়েছে কাতারের বাজারগুলো।

কাতারের এই সংকটে ইরান ও তুরস্ক দেশটির পাশে এসে দাঁড়ায়েছি। ওই দুই দেশ কাতারে খাদ্য পাঠিয়েছে। এছাড়া শক্তি প্রদর্শনের জন্য তুরস্ক সেনা ও সামরিক যান পাঠিয়েছে। কুয়েত কিছুটা কূটনৈতিকভাবে সাহায্য করেছে কাতারকে।

ad