গুহা থেকে ৫ জনকে উদ্ধারে অভিযান শুরু

Cave, 5 people, rescued, expedition,
ad

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: থাইল্যান্ডের একটি গুহায় গত ২৩ জুন থেকে আটকে থাকা ১২ জন কিশোর ফুটবলার ও তাদের কোচকে উদ্ধারে চালানো অভিযানে এখন পর্যন্ত মোট আটজনকে উদ্ধার করা হয়েছে। অবশিষ্ট চার ফুটবলার ও তাদের কোচকে উদ্ধারে আজ অভিযান আবারও শুরু হয়েছে। ডুবুরি ও উদ্ধারকর্মীরা তারা আশা করছেন, এটাই তাদের ‘চূড়ান্ত’ অভিযান।

মঙ্গলবার (১০ জুলাই) সকাল থেকে তৃতীয় দিনের মতো অভিযান শুরু হয়।

থাই কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, গুহার ভেতরে থাকা বাকি চার ফুটবলার ও তাদের কোচ সুস্থ আছেন। অত্যন্ত ঝুঁকিবহুল আর পানিভর্তি দীর্ঘ আঁকাবাঁকা গুহাপথ পাড়ি দিয়ে সফল এক উদ্ধার অভিযান পরিচালনার মধ্য দিয়ে তাদের সবাইকে সফলভাবে উদ্ধার করা যাবে বলে কর্তৃপক্ষ আশাবাদ ব্যক্ত করেছে।

জানাগেছে, গুহায় এখনো পর্যন্ত আটক কোচসহ চার কিশোর ফুটবলারদের শারীরিক অবস্থা ভালো আছে। তাই তাদেরকে আজ গাইড করে গুহার চিকন রাস্তা দিয়ে বের করে আনা হবে। তবে আজই অবশিষ্ট সকলকে বের করে আনা সম্ভব ক না, সে বিষয়ে নিশ্চিত করে কিছু জানা যায়নি।

উদ্ধার অভিযানের প্রধান নারংসাক অসোট্টানাকর্ন জানান, এটা নির্ভর করে আবহাওয়ার ওপর। বৃষ্টি কমলে তারা দ্রুত কাজ করতে পারবে। অন্যথায় উদ্ধারকাজ কঠিন হয়ে পড়বে।

উদ্ধারকারীরা জানিয়েছেন, একদিনে সর্বোচ্চকে চারজনকে উদ্ধার করা নিরাপদ। সে হিসাবে আজ যদি পাঁচজনকে উদ্ধার করা সম্ভব না হয়, তাহলে চার ফুটবলারকে উদ্ধার করা হবে। সেক্ষেত্রে ফুটবলারদের ২৫ বছর বয়সী কোচকে গুহায় রাতে একা থাকতে হতে পারে।

এদিকে মঙ্গলবার ফিফা সভাপতি জিয়ান্নি ইনফান্টিনো জানিয়েছেন, আগামী রবিবার (১৫ জুলাই) মস্কোর লুঝনিকি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠেয় রাশিয়া ফুটবল বিশ্বকাপের ফাইনালে দলটির কোচসহ মোট ১৩ জনের জন্য বরাদ্দ রাখা হবে ১৩টি আসন।

এর আগে রবিবার (৮ জুলাই) চারজন এবং সোমবার (৯ জুলাই) চালানো অভিযানে মোট আটজনকে গুহা থেকে উদ্ধার করা হয়।

বিবিসি জানায়, প্রায় চার কিলোমিটার দীর্ঘ ও আঁকাবাঁকা সুড়ঙ্গের ভেতর দিয়ে শিশুদের বাইরে আনার জন্য ডুবুরিরা নানা ধরনের যন্ত্রপাতি ব্যবহার করেছেন। প্রতিটি শিশুর সঙ্গে দুজন করে ডুবুরি থাকছেন।

১৩ জন বিদেশী ডুবুরি এবং থাইল্যান্ডের রাজকীয় নেভির পাঁচজন সিল সদস্য থাকছেন এই বিশেষ উদ্ধারকারী দলে। তারা গুহার ভেতরে এমন এক জায়গা থেকে আটকে পড়াদের উদ্ধার করবেন যেখানে সাঁতরে যেতে হবে।

এছাড়া যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া, চীন এবং ইউরোপ থেকে অংশ নেয়া ডুবুরিদের অপর একটি দল গুহার প্রবেশপথ চেম্বার-৩ এ অবস্থান করছেন। চেম্বার-২ এবং চেম্বার-৩ এর মাঝে সংকীর্ণ ও উঁচু-নিচু জলমগ্ন পথে রশি বসিয়ে সহায়তা করবে এই দলটি।

উল্লেখ্য, গত ২৩ জুন ১২ কিশোর ফুটবলার ও তাদের কোচ বেড়াতে গিয়ে উত্তরাঞ্চলীয় চিয়াং রাই এলাকার থাম লুয়াং নং নন গুহায় আটকা পড়ে। কিশোরদের বয়স ১১ থেকে ১৬ বছরের মধ্যে। গুহাটি প্রায় ১০ কিলোমিটার দীর্ঘ। এটি থাইল্যান্ডের দীর্ঘতম গুহার একটি।

এখানে যাত্রাপথের দিক খুঁজে পাওয়া কঠিন। ভারী বর্ষণ আর কাদায় থাম লুয়াংয়ের প্রবেশ মুখ বন্ধ হয়ে গেলে তারা আটকা পড়ে। নিখোঁজের পর গুহার পাশে তাদের সাইকেল এবং খেলার সামগ্রী পড়ে থাকতে দেখা যায়।

নিখোঁজের নয়দিন পর ২ জুলাই দুইজন বৃটিশ ডুবুরি চিয়াং রাই এলাকার থাম লুয়াং নং নন গুহায় তাদের জীবিত সন্ধান পান। পরে থাইল্যান্ড নৌ বাহিনী গুহায় আটকা পড়া কিশোরদের ভিডিও ফেসবুকে পোস্ট করেন। ডুবুরিরা তাদের টর্চলাইটের আলো ফেলে ১৩ জনকেই দেখতে পায়। সে সময় তারা খুব ক্ষুধার্ত ছিল।

ad