ধূলিঝড়ে লণ্ডভণ্ড ভারত, নিহত ৭৭

rajasthan jhor
ad

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ভারতের উত্তর প্রদেশ ও রাজস্থানে ধূলিঝড়ে ৭৭ জনেরও অধিক মানুষের নিহত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে বহু মানুষ।

বুধবার (২ মে) আঘাত হানা ওই ঝড়ে উত্তর প্রদেশে নিহত হয়েছে অন্তত ৫০ জন। আর রাজস্থানে ২৭ জন নিহত হওয়ার খবর প্রকাশ করেছে ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম।

জানা যায়, পূর্ব রাজস্থান ঝড়ের ফলে বেশিমাত্রায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। পূর্বদিকের আলওয়ার, ঢোলপুর ও ভরতপুর জেলায় ঝড়ের প্রকোপ বেশি দেখা যায়। আলওয়ারে দিল্লির দিক থেকে এসেছিল এই ধূলিঝড়। ঝড়ের জন্য জেলার অনেক বৈদ্যুতিক পোল ভেঙে যায়। ফলে জেলা জুড়ে মধ্যরাত পর্যন্ত কোনও বিদ্যুৎ ছিল না। একই অবস্থা ছিল রাজ্যের একাধিক জেলায়।

শুধুমাত্র ভরতপুর জেলায় ১১ জনের মৃত্যুর হয়েছে। ঝড়ের ফলে বিভিন্ন জায়গায় ভেঙে পড়ে বহু বাড়ি। প্রশাসন এখন পর্যন্ত ২৭ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে। তবে পরে সংখ্যা আরও বাড়তে পারে ধারণা তাদের।

উত্তর প্রদেশে ঝড়ে অন্তত ৫০ জন নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে রাজস্ব ও ত্রাণ কমিশনার। তিনি জানান, ঝড়ে এ রাজ্যে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে আগ্রা জেলা। এখানেই নিহতের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। উদ্ধারকর্মীরা এ রাজ্যে উদ্ধার কাজ শুরু করেছে। ত্রাণ বিতরণের জন্য প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে।

উত্তর প্রদেশের এক সরকারি কর্মকর্তা জানান, আগ্রাতে এখন পর্যন্ত ৩৬ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এছাড়া শানপুরে দুইজন এবং বেরিয়েল্লি, রামপুর ও মুরাদাবাদে একজন করে নিহত হওয়ার খবর এসেছে। তাদের মধ্যে বেশিরভাগেরই মৃত্যু হয়েছে ঘর ভেঙে পড়ে ও বজ্রপাতে। এছাড়া, বৈদ্যুতিক তারে জড়িয়েও মারা গেছে কয়েকজন।

শুধু উত্তর প্রদেশ ও রাজস্থান নয় ঝড়টি আঘাত হেনেছিল দিল্লিতেও। তবে এখানে কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

বুধবার বিকালে দিল্লিতে ধূলিঝড় ও ভারী বর্ষণ শুরু হয়। বিকাল পৌনে পাঁচটা নাগাদ প্রায় ৫৯ কিলোমিটার বেগে ঝড় হয়। তবে কিছুক্ষণের জন্য এই ঝড় হয়েছিল। ঝড়ের কারণে ১৫টি বিমান বাতিল করা হয়। এর মধ্যে আন্তর্জাতিক বিমানও রয়েছে। বুধবার রাজস্থানের অনেক জায়গায় তাপমাত্রা ছিল বেশ বেশি। কোটার তাপমাত্রা ছিল ৪৫.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তাপমাত্রা বেশি থাকার কারণে আবহাওয়া দপ্তর আগেই ধূলিঝড়ের সতর্কবার্তা দিয়েছিল। সেই সঙ্গে হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনার কথাও জানিয়েছিল।

ad