পরকীয়া সম্পর্ক গড়ে বাবা হয়েছিলেন ট্রাম্প!

donald-trump
ad

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ১৯৮০ সালের শেষদিকে বিবাহবহির্ভূত সম্পর্ক স্থাপনের মাধ্যমে সন্তানের বাবা হয়েছিলেন এবং সেই গোপন তথ্য ফাঁস করতে চেয়েছিলেন ট্রাম্পের টাওয়ারেরই তৎকালীন দ্বাররক্ষী।

বৃহস্পতিবার (১২ এপ্রিল) দ্য নিউইয়র্কার ও অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস ট্যাবলয়েড পত্রিকা ন্যাশনাল ইনকোয়েরারের এই অপকাণ্ডের সংবাদ প্রকাশ করেছে।

ওই দ্বাররক্ষীর মুখ বন্ধ রাখতে তাকে ৩০ হাজার মার্কিন ডলার ঘুষ দিয়েছিল ট্রাম্পের বন্ধুর পত্রিকা দ্য ন্যাশনাল ইনকোয়েরার।

প্রকাশিত সংবাদে বলা হয়, ২০১৫ সালের শেষদিকে ন্যাশনাল ইনকোয়েরারকে ট্রাম্প টাওয়ারের সাবেক দ্বাররক্ষী ডিনো সাজুদিন জানান, তিনি শুনতে পেয়েছেন ১৯৮০ সালের শেষদিকে এক কর্মচারীর সঙ্গে বিয়েবহির্ভূত সম্পর্ক স্থাপনের মাধ্যমে ট্রাম্প এক সন্তানের বাবা হয়েছিলেন।

‘ধর এবং হত্যা কর’- এই তত্ত্বের ওপর ভিত্তি করে ইনকোয়েরার সাজুদিনের কাছ থেকে ৩০ হাজার ডলার দিয়ে তথ্যটি কিনে নেয়। এরপরই ট্রাম্পের পক্ষে ওই প্রতিবেদনটি ধামাচাপা দেয়া হয়।

দ্য নিউইয়র্কারের সাংবাদিক রোনান ফ্যারো বৃহস্পতিবার সিএনএনকে জানিয়েছেন, প্রতিবেদনটি ধামাচাপা দেয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন ইনকোয়েরারের প্রকাশক ও ট্রাম্পের বন্ধু ডেভিড পিকার।

এদিকে, প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ”মাফিয়া বস”-এর সঙ্গে তুলনা করেছেন দেশটির কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা-এফবিআই-এর সাবেক পরিচালক জেমস কোমি বলেছেন, ট্রাম্প ভালো-মন্দের পার্থক্য বোঝেন না। সব বিষয়ে মিথ্যা বলার বদ অভ্যাসও রয়েছে তার। এছাড়া সব কিছুই নিজের মতো করে করতে চান

“এ হায়ার লয়্যালটি: ট্রুথ, লাইস অ্যান্ড লিডারশিপ” নামে কোমি তার নতুন বইয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট সম্পর্কে এমন ৬টি মন্তব্য করেছেন। বইটি আগামী মঙ্গলবার বাজারে আসার কথা। তবে এর আগে বইটির সারসংক্ষেপ নিয়ে মার্কিন গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়।

গত বছরের মে মাসে এফবিআই-এর পরিচালক পদ থেকে কোমিকে বরখাস্ত করেন ট্রাম্প। কোমির মতে, গত মার্কিন নির্বাচনে রুশ হস্তক্ষেপের বিষয়ে প্রেসিডেন্ট ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে যে তদন্ত চলছে, তা বন্ধ করতে ট্রাম্প কোমিকে চাপ দিয়েছিলেন। কিন্তু তাতে রাজি না হওয়ায় তাকে পদচ্যুত করা হয়।

ad