যুক্তরাষ্ট্রে শ্বেতাঙ্গ-বর্ণবাদবিরোধীদের সংঘাতে নিহত ৩

White-anti racism, conflict, dead 3,
ad

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের ভার্জিনিয়ার শার্লোটসভিল শহরে চরম ডানপন্থী শ্বেতাঙ্গ জাতীয়তাবাদী আর বর্ণবাদবিরোধীদের মধ্যে ব্যাপক সংঘাতের ঘটনায় অন্তত তিনজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও অন্তত ৩৫ জন। এমন পরিস্থিতির ফলে শহরে জরুরি অবস্থা জারি করেন রাজ্য গভর্নর।

শনিবার (১২ আগস্ট) স্থানীয় সময় বেলা সাড়ে ১১টার দিকে পুলিশের ব্যারিকেড ভাঙার চেষ্টা করলে সহিংসতার সূত্রপাত ঘটে।

বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের খবরে জানাগেছে, শ্বেতাঙ্গ জাতীয়তাবাদীদের একটি মিছিল বর্ণবাদবিরোধীদের সমাবেশস্থলে এলে সংঘর্ষের সূচনা হয়। সে সময় শান্তিপূর্ণ সমাবেশের অংশগ্রহণকারীদের ওপর হামলে পড়ে একটি চলন্ত গাড়ি। গাড়ি ঢুকিয়ে দিলে একজন এবং সমাবেশের পাশে একটি হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় আরও দুজন নিহত হন।

১৮৬১ থেকে ৬৫ সাল পর্যন্ত আমেরিকার গৃহযুদ্ধে দাসপ্রথার পক্ষে ‘কনফেডারেট’ বাহিনীকে নেতৃত্ব দেয়া জেনারেল রবার্ট ই লি এর ভাস্কর্য অপসারণের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে সকালে সমবেত হন তারা। কনফেডারেট পতাকা নিয়ে নাৎসি আমলের নানা স্লোগান সহকারে পার্কের ওই ভাস্কর্য অভিমুখে যাত্রা করেন। এ সময় অনেকের মাথায় হেলমেট ও হাতে ঢাল দেখা যায়।

বর্ণবাদ বিরোধী সংগঠনগুলো তাদের বিরোধিতা করে এ সময় আলাদা মিছিল বের করে। একপর্যায়ে দুইপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেঁধে যায়। শহরে অনেক রাস্তায় সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ে। পরিস্থিতি সামলাতে টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ করে পুলিশ। এ সময় অনেককে গ্রেপ্তার করা হয়।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এবং বার্তা সংস্থা রয়টার্স ‘শেতাঙ্গ বর্ণবাদী ও বর্ণবাদ বিরোধীদের সংঘর্ষ’ শিরোনামে এ সংক্রান্ত খবর প্রচার করেছে। বিবিসি ও রয়টার্সের প্রতিবেদনে মশাল হাতে শত শত শ্বেতাঙ্গ মিছিলে শ্লোগান দেন ‘ইহুদীরা আমাদের জায়গা নিতে পারবে না’ এবং ‘শ্বেতাঙ্গদের জীবনের মূল্য আছে।’ এই মিছিলের সময় বর্ণবাদ বিরোধী বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে তাদের সংঘর্ষ হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, দুইপক্ষই একে অপরের ওপর বোতল, পাথর ছুড়ে মারে। এমনকি তারা পিপার স্প্রেও ব্যবহার করে। যদিও শহরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে, কিন্তু এখনও অনেক স্থানে বিছিন্নভাবে সহিংসতার খবর পাওয়া যাচ্ছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা গার্ডিয়ানকে জানিয়েছেন, শেতাঙ্গদের আধিপত্যের প্রতিবাদে শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে গাড়ি তুলে দেয়া হয়। আর ভিডিওতে দেখা যায়, গাড়িটি অন্য গাড়িকে ধাক্কা দিচ্ছিলো এবং মানুষরা ছিটকে পড়ে যাচ্ছিল। পরে সেই চালককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এক টুইটার বার্তায় তিনি বলেছেন, আমাদের সবার ঐক্যবদ্ধভাবে সব ধরনের বিদ্বেষের বিরুদ্ধে দাঁড়ানো উচিত। আমেরিকায় এ রকম সহিংসতার কোনো জায়গা নেই।

শার্লোটসভিল একটি উদারপন্থী শহর হিসেবেই পরিচিত। যুক্তরাষ্ট্রের গত প্রেসিডেন্সিয়াল নির্বাচনে এই শহরের ৮৬ শতাংশ ভোট পেয়েছিলেন হিলারি ক্লিনটন। তবে এখানকার কাউন্সিল কর্তৃপক্ষ জেনারেল লির ভাস্কর্য সরিয়ে নেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়ার পর শহরটি শ্বেতাঙ্গ জাতীয়তাবাদীদের লক্ষ্য হয়ে ওঠেছে।

ad