ভেনেজুয়েলায় নির্বাচনে মাদুরো জয়ী, কারচুপির অভিযোগ

Venezuela, election, Maduro, win
ad

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ভেনেজুয়েলায় অনুষ্ঠিত প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে নিকোলাস মাদুরো আরও ছয় বছরের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন। তবে বিরোধীরা এ নির্বাচন বর্জন করেছে এবং ভোটে কারচুপিরও অভিযোগ এনেছে।

রবিবার (২০ মে) ৩৪ হাজার ভোটকেন্দ্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। সকাল ৬টা থেকে শুরু হয়ে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ চলে।

বিবিসি জানায়, অর্থনৈতিক সংকট থেকে উদ্ভূত খাদ্য সংকটের মধ্যে নির্বাচনে ৪৬ শতাংশ মানুষ ভোট দিয়েছে।

জয়ের পর রাজধানী কারাকাসে উল্লসিত জনতার সামনে মাদুরো বলেন, ‘তারা আমাকে গুরুত্ব দেয়নি।’

ন্যাশনাল ইলেকটোরাল কাউন্সিল প্রধান টিবিসে লুসিনা জানান, নির্বাচনে গৃহিত ভোটের ৯০ শতাংশ গণনা শেষে দেখা যায়, ৫৫ বছর বয়সি মাদুরো ৬৭.৭% ভোট পেয়েছেন। ফ্যালকন পেয়েছেন ২১.২ শতাংশ ভোট।

এবারের নির্বাচন বেশ বিতর্কিত ছিল। ফল ঘোষণার আগেই বিরোধী দল এ নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেয়। তারা সরকারি দলের বিরুদ্ধে নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ আনে।

ভোট গ্রহণ শেষ হওয়ার পর প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী হেনরি ফ্যালকন ফল প্রত্যাখ্যান করেন। তিনি বলেন, আমরা এই নির্বাচনী প্রক্রিয়াকে বৈধ মনে করছি না। ভেনেজুয়েলায় আমাদের নতুন নির্বাচন করতে হবে। মাদুরোর পক্ষে ভোট কারচুপি হয়েছে।

বিরোধী ডেমোক্রেটিক ইউনিটি জোট বলছে, জোটের মধ্যে যে বিভাজন রয়েছে, তার সুবিধা নিতেই নির্বাচন এগিয়ে নিয়ে আসা হয়। জোটের দুই প্রার্থীকে নির্বাচনে অংশ নিতে দেওয়া হয়নি। অন্যরা দেশ ছেড়ে পালিয়েছে।

হেনরি ফ্যালকন প্রয়াত হুগো চ্যাভেজের সময় গভর্নর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। মাদুরোর সোশ্যালিস্ট পার্টি থেকে বেরিয়ে তিনি ২০১০ সালে বিরোধীদের সঙ্গে যোগ দেন।

যুক্তরাষ্ট্র এ নির্বাচন প্রত্যাখান করেছে। এক টুইটে দেশটি জানায়, ভেনেজুয়েলায় আজকের (রবিবার) এ নির্বাচন গণতন্ত্রের জন্য অপমানজনক। মাদুরোর চলে যাওয়ার সময় চলে এসেছে।

ad