যুক্তরাজ্যে মধ্যবর্তী নির্বাচনে ঝুলন্ত পার্লামেন্টের সম্ভাবনা

UK, hanging parliament, prospect,
ad

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: যুক্তরাজ্যে অনুষ্ঠিত মধ্যবর্তী নির্বাচনে বুথ ফেরত জরিপে দেখা গেছে, বর্তমান ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টির সর্বোচ্চসংখ্যক আসন পাওয়ার সম্ভাবনা থাকলেও কোনো দলই একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাচ্ছে না। ফলে ঝুলন্ত পার্লামেন্টের দিকে এগোচ্ছে যুক্তরাজ্য।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে জানানো হয়, এখন পর্যন্ত ৬৩৪টি আসনের ফল জানাগেছে। প্রাপ্ত ফলাফল অনুযায়ী, কনজারভেটিভ পার্টি পেয়েছে ৩০৯ আসন। লেবার পার্টি পেয়েছে ২৫৮ আসন। এসএনপি ৩৪ আসন। লিব ডেম পেয়েছে ১২ আসন। অন্যান্য দল পেয়েছে ২১ আসন।

বিবিসি তার পূর্বাভাসে বলছে, সাধারণ নির্বাচনে আসন ভাগাভাগিতে কনজারভেটিভ পাবে ৩১৮, লেবার পার্টি ২৬৭, লিবারেল ডেমোক্রেটস দল (লিবডেম) ১১টি ও স্কটিশ জাতীয়তাবাদী দল (এসএনপি) পাবে ৩২টি।

পূর্বাভাসে আরো বলা হয়েছে, এর আগের নির্বাচনে কনজারভেটিভ পার্টি ৩৩১টি আসন পেয়ে সরকার গঠন করে। কিন্তু এবার সেখান থেকে তাদের আসন সংখ্যা ১৫টি কমতে পারে। একই সঙ্গে লেবার পার্টি গতবার পেয়েছিল ২৬৭টি আসন। এবার তাদের সেই আসনের সঙ্গে আরো ৩৩টি আসন যোগ হতে পারে।

যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্টের নিম্ন কক্ষ হাউস অব কমনসের মোট আসন ৬৫০টি। কোনো দল এককভাবে ৩২৬ আসন পেলেই মিলবে সংখ্যাগরিষ্ঠতা।

এমন ধরণের পরিস্থিতিতে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ক্ষমতায় থাকবেন এবং ডাউনিং স্ট্রিটেই বসবাস করবেন যতক্ষণ না নতুন সরকার গঠন হবে। তারপর ঝুলন্ত সাংসদরা নিজেদের মধ্যে দফায় দফায় বৈঠক করবেন। তারা চেষ্টা করবেন জোট গঠন করে একটা সরকার গঠন করতে অথবা কনজারভেটিভ দলের নেতা থেরেসা মে অথবা লেবার নেতা জেরেমি করবিনকে প্রধানমন্ত্রী করে হয়ত কোনো একটা সমাঝোতার ভিত্তিতে সরকার গঠন করতে।

অথবা দুই দলের মধ্যে কোন একটি দলের নেতা সিদ্ধান্ত নিতে পারেন যে তারা সংখ্যালঘু সরকার গঠন করবেন, এই ভিত্তিতে যে যখন পার্লামেন্টে আইন পাশ করতে হবে, তখন ছোট দলগুলোর সমর্থন তারা নিশ্চিতভাবে পাবেন।

ad