যৌন কেলেঙ্কারি: সাহিত্যে এবারের নোবেল স্থগিত

Nobel
ad

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: যৌন নিপীড়ন ও হয়রানির অভিযোগে সমালোচনার মুখে পড়ে সুইডিশ একাডেমি এ বছর সাহিত্যে নোবেল স্থগিত করেছে।

শুক্রবার (৪ মে) বিবিসির এক প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানাগেছে।

বিবিসি জানায়, ২০১৮ সালের নোবেল সাহিত্য পুরস্কারটি ‘রিজার্ভড প্রাইজ’ হিসেবে ২০১৯ সালের পুরস্কারের সঙ্গে ঘোষণা করা হবে।

সুইডিশ একাডেমির তরফ থেকে জানানো হয়, সংস্থাটির সক্রিয় ১০ সদস্য একটি আলোচনার পরই এই সিদ্ধান্ত নেন।

ঘটনাটি শুরু হয় ফরাসি আলোকচিত্রী জাঁ ক্লোদ অ্যারানাল্টকে নিয়ে। সুইডিশ একাডেমি থেকে পদত্যাগ করা কবি ক্যাটরিনা ফ্রসটেনসনের স্বামী অ্যারানাল্টের বিরুদ্ধে অভিযোগ তিনি একাডেমির কর্মকর্তা, সদস্যদের আত্মীয়সহ একাধিক জনকে যৌন নিপীড়ন ও হয়রানি করেছেন।

ছয় ক্যাটাগরির নোবেল পুরস্কারের মধ্যে ৫টি পুরস্কার নরওয়েজিয়ান একাডেমি থেকে দেওয়া হলেও সাহিত্য পুরস্কার ঘোষণা করে সুইডিশ অ্যাকাডেমি। আর ওই একাডেমির গুরুত্বপূর্ণ এক সদস্যের স্বামীর বিরুদ্ধে এমন অভিযোগের পর শুরু হয় সমালোচনা।

এরপর অ্যারানাল্টের স্ত্রী ফ্রস্টেনসনকে দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়ার দাবি ওঠে। তবে ফ্রস্টেনসনকে দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়ার বিপক্ষে ভোট দেয় অ্যাকাডেমি। এ সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে ১৮ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি থেকে তিন সদস্য ক্লাস অস্টেরগ্রেন, কোজেল ইসেপমার্ক এবং পিটার ইংলুন্ড সরে দাঁড়ান। এরপর এপ্রিলে পদত্যাগ করেন ফ্রস্টেনসন। আর তার কিছুক্ষণ পরই পদত্যাগের ঘোষণা দেন অ্যাকাডেমি প্রধান দানিয়ুস।তার ঘোষণার পর থেকেই অনিশ্চিত ছিল সাহিত্যে এবারের নোবেল পুরস্কার।

একাডেমির স্থায়ী সেক্রেটারী অ্যান্ডার্স ওলসন বলেন, পরবর্তী পুরস্কার কে পাচ্ছেন সে বিষয়ে ঘোষণার আগেই আমাদের সংস্থার প্রতি জনগণের বিশ্বাস ফিরিয়ে আনতে এটা আমাদের জরুরি মনে হয়েছে। তবে শুধুমাত্র সাহিত্যের নোবেল পুরস্কারের ক্ষেত্রেই এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। অন্য কোনো পুরস্কার এক্ষেত্রে প্রভাবিত হবে না।

ad