লন্ডনে মুসল্লিদের ওপর ভ্যান: নিহত ১

London, Van Attack, 1 killed
ad

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: যুক্তরাজ্যের রাজধানী লন্ডনে একটি মসজিদের কাছে মুসল্লিদের ওপর ভ্যান উঠিয়ে দেওয়ার ঘটনায় একজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও ১০ জন। এ ঘটনায় এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

রবিবার (১৯ জুন) স্থানীয় সময় রাত সাড়ে ১২টার দিকে উত্তর লন্ডনের সেভেন সিস্টারস রোডের ফিন্সবুরি পার্ক মসজিদের কাছে এই হামলা চালানো হয়। তখন মুসল্লিরা মসজিদ থেকে নামাজ পড়ে বের হচ্ছিলেন।

একজন প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইল জানিয়েছে, মুসল্লিদের ওপর ভ্যান তুলে দেয়ার পর হামলাকারী ওই চালক চিৎকার করে বলেন, ‘সব মুসলমানকে খুন করব।’

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, হামলার পর ওই গাড়িচালককে আটক করে ঘটনাস্থলে থাকা লোকজন। তখন তিনি চিৎকার করে ওই কথা বলছিলেন। পরে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

স্থানীয় এক নারী সংবাদমাধ্যম বিবিসিকে বলেন, জানালা থেকে আমি মানুষের আর্তনাদ শুনতে পাই। সবাই চিৎকার করছিল। একটি ভ্যানগাড়ি লোকজনকে ধাক্কা দেয়। একটি সাদা ভ্যানগাড়ি ফিনসবেরি পার্কের পাশে দাঁড়িয়ে ছিল। মসজিদ থেকে নামাজ পড়ে ফেরার পথে ভ্যানটি মুসল্লিদের চাপা দেয়। আমি হামলাকারীকে দেখিনি। কিন্তু তাকে আটক করা হয়েছে। আমি শুধু গাড়িটি দেখেছি।

বিবিসি জানায়, হামলার ঘটনার পরপরই আশপাশের লোকজন আহতদের সাহায্য করতে এগিয়ে গেলে সেখানে চরম বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয়। হামলার পর অনলাইনে পোস্ট করা ভিডিওতে ওই বিশৃঙ্খলার চিত্র ফুটে ওঠে। ভিডিওতে দেখা যায়, আহত একজনকে রাস্তায় সিপিআর দিচ্ছে আরেক ব্যক্তি। পাশেই মাথায় আঘাত পাওয়া একজনকে তাৎক্ষণিক অস্থায়ী ড্রেসিং করা হয়।

London, Van Attack, 1 killed

লন্ডন অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস জানায়, তারা ঘটনাস্থলে বেশ কয়েকটি অ্যাম্বুলেন্স পাঠিয়েছে। সংস্থাটির উপ-পরিচালক কেভিনবেট বলেন, আমরা কয়েকজন অ্যাম্বুলেন্স কর্মী, দক্ষ প্যারামেডিক ও বিশেষ দল পাঠিয়েছি। এছাড়া লন্ডন এয়ার অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিসের ট্রমা টিমও সেখানে গেছে।

সিনথিয়া ভ্যানজেলা নামের এক ব্রিটিশ টুইটারে জানান, দৃশ্যটি সত্যি ভয়ংকর ছিল। মাটিতে শুয়ে থাকা আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিচ্ছিল পুলিশ।

লন্ডন মেট্রোপলিটন পুলিশ জানিয়েছে, সন্ত্রাসবিরোধী কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে আছেন। বিষয়টি তারা তদন্ত করছেন।

মুসলিম কাউন্সিল অব ব্রিটেন (এমসিবি) বলছে, পরিকল্পিতভাবে ওই ভ্যানটি মুসুল্লিদের ওপর তুলে দেয়া হয়। এ ঘটনাকে ‘ইসলাম ভীতির সহিংস প্রকাশ’ হিসেবে বর্ণনা করে যুক্তরাজ্যের মসজিদগুলোতে বাড়তি নিরাপত্তার ব্যবস্থা করার আহ্বান জানিয়েছে তারা।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী টেরেসা মে এ ঘটনাকে ‘ভয়াবহ ঘটনা’ বলে উল্লেখ করে বলেছেন, আহত সবাই, তাদের প্রিয়জন এবং ঘটনাস্থলে দায়িত্বরত ইমার্জেন্সি সার্ভিসের জন্য আমার প্রার্থনা রইল।

লেবার পার্টির নেতা জেরেমি করবিন এ হামলার ঘটনায় তার টুইটারে লিখেছেন, ‘আমি পুরোপুরি হতভম্ব।’

ad