লন্ডনে সন্ত্রাসী হামলায় নিহত ৯ (ভিডিও)

London, terrorist attacks, 9 killed
ad

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ম্যানচেস্টারে হামলার দুই সপ্তাহের মধ্যে দ্বিতীয়বারের মতো জঙ্গি হামলার শিকার হলো ইংল্যান্ড। এবার লন্ডন শহরের দুটি পৃথক স্থানে সন্ত্রাসী হামলায় ছয়জন এবং পুলিশের গুলিতে সন্দেহভাজন তিন হামলাকারী অর্থাৎ মোট নয়জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছেন অন্তত ৪৮ জন।

শনিবার (৩ জুন) স্থানীয় সময় রাত ১০টার দিকে লন্ডন ব্রিজে ভীড়ের মধ্যে ভ্যান চালিয়ে দিয়ে এবং ছুরি নিয়ে ও বোরো মার্কেটে ছুরি নিয়ে এ হামলা চালানো হয়।

আহতদের স্থানীয় ছয়টি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় আহতদের জন্য জরুরি অ্যাম্বুলেন্স সুবিধা দিচ্ছে লন্ডন। লিভারপুল স্ট্রিট হোটেলে আশ্রয় নিয়েছেন ২০ জন আহত ব্রিটিশ।

ব্রিটিশ পুলিশের সন্ত্রাসবিরোধী ইউনিটের প্রধান মার্ক রাউলি জানিয়েছেন, হামলা শুরুর ৮ মিনিটের মাথায় বোরো মার্কেট এলাকায় তিন হামলাকারী পুলিশের গুলিতে নিহত হয়।

বার্তা সংস্থা বিবিসি জানিয়েছে, সাদা একটি গাড়ি রাস্তা ছেড়ে লন্ডন ব্রিজের ফুটপাতে উঠে পড়ে এবং পথচারীদের চাপা দেয়। হামলার সময় সেতুটিতে ছিলেন বিবিসির সাংবাদিক হলি জোন্স। তিনি জানান, একজন পুরুষ ঘণ্টায় প্রায় ৫০ কিলোমিটার গতিতে গাড়ি চালিয়ে ব্রিজের ফুটপাতে পথচারীদের ওপর উঠে পড়ে।

London, terrorist attacks, 9 killed

এদিকে, প্রায় একই সময়ে ব্রিজের কাছেই বোরো মার্কেটে ছুরি নিয়ে হামলা চালানো হয়। পুলিশ জানায়, ওই তিন হামলাকারীই বোরো মার্কেটে গিয়ে ছুরি নিয়ে হামলা চালায়। টেমস ব্রিজের দক্ষিণ দিকে ওই এলাকা রেস্তোরাঁ ও বারের জন্য পরিচিত। সাপ্তাহিক ছুটির রাত হওয়ায় সে সময় বেশ ভীড় ছিল সেখানে। হামলাকারীদের শরীরে ক্যানিস্তারের মত কিছু বাধা দেখে প্রথমে সুইসাইডাল ভেস্ট বলে ভাবা হলেও পরে দেখা যায় সেগুলো ভুয়া।

প্রত্যক্ষদর্শী ব্যক্তিরা জানান, একজন পুরুষ ঘণ্টায় প্রায় ৫০ কিলোমিটার গতিতে গাড়ি চালিয়ে ব্রিজের ফুটপাতে পথচারীদের ওপর উঠে পড়ে। লন্ডন ব্রিজে হামলার পর তারা ভ্যান থেকে কয়েকজনকে বের হয়ে বোরো মার্কেটের দিকে যেতে দেখেছেন। পরে ওই এলাকায় গুলির শব্দ শোনা যায়। হামলাকারী তিনজন ছিল। কিছুক্ষণ চালানোর পর হামলাকারীরা তিনজনই হাতে ছুরি নিয়ে লাফিয়ে গাড়ি থেকে নামে এবং আশপাশে থাকা লোকজনকে ছুরিকাঘাত করতে থাকে।

জানাগেছে, প্রথমে ছুরিকাঘাতে আহতদের একজন ব্রিটিশ ট্রান্সপোর্ট পুলিশ সদস্য বলে জানিয়েছে টেলিগ্রাফ। জরুরি সাহায্যের জন্য ফোন পাবার পর প্রথম তিনিই ঘটনাস্থলে পৌঁছান এবং হামলাকারীদের ঠেকাতে গিয়ে ছুরির আঘাতে আহত হন। তার মাথা, মুখমণ্ডল এবং পায়ে গুরুতর আঘাত থাকলেও তা মারাত্মক নয় বলে জানিয়েছেন দায়িত্বরত চিকিৎসক।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে। ইতোমধ্যে সেই হামলাকে ‘সন্ত্রাসী হামলা’ বলে উল্লেখ করেছেন। এই বিষয়ে রবিবার সকালে সরকারি জরুরি বৈঠকে বসবেন তিনি।

এই ঘটনায় শোক জানিয়েছেন লেবার পার্টির নেতা জেরেমি করবিন। এক টুইট বার্তায় তিনি বলেন, লন্ডনে হতাহতদের ও তাদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা। দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়ায় ধন্যবাদ।

এছাড়া মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, লন্ডনের মেয়র সাদিক খান, মার্কিন পপ তারকা আরিয়ানা গ্রান্ডও শোক প্রকাশ করেছেন।

ভিডিও দেখতে ক্লিক করুন এখানে:

ad