সিঙ্গাপুরে ট্রাম্প-কিম বৈঠক ১২ জুন

Singapore, Trump-Kim, meeting, June 12,
ad

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: বহুল প্রতীক্ষিত যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা কিম জং-উনের শীর্ষ বৈঠকটি আগামী ১২ জুন সিঙ্গাপুরে অনুষ্ঠিত হবে।

ডোনাল্ড ট্রাম্প এক টুইট বার্তায় বিষয়টি নিশ্চিত করে লিখেছেন, আমি সত্যিই খুবই অর্থবহ কিছু একটা করার ভালো একটি সুযোগ পেয়েছি বলে মনে করছি। এই বৈঠককে বিশ্ব শান্তির জন্য একটি বিশেষ মুহূর্ত হিসেবে প্রতীয়মান করতে আমরা দুজনেই চেষ্টা করবো।

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, উত্তর কোরিয়ায় আটক তিন মার্কিন নাগরিক যুক্তরাষ্ট্রে ফিরে আসার কয়েক ঘণ্টা পর তাদের স্বাগত জানান প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। এর কিছুক্ষণ পরই আসে সিঙ্গাপুরে বৈঠক অনুষ্ঠানের ঘোষণা। গত মার্চ মাসে কিম জং-উনের দেয়া বৈঠকের আমন্ত্রণ গ্রহণ করেন ট্রাম্প।

শীর্ষ বৈঠকটির লক্ষ্য হবে ওয়াশিংটন এবং পিয়ংইয়ং-এর মধ্যে সামরিক উত্তেজনা কমিয়ে আনা এবং নর্থ কোরিয়ার পারমাণবিক অস্ত্র কর্মসূচির একটা সম্ভাব্য সমাপ্তি নিয়ে আলোচনা করা।

মার্কিন কর্মকর্তারা বৈঠকের জন্য দুই কোরিয়ার মধ্যবর্তী বেসামরিক এলাকা (ডিমিলিটারাইজড জোন) অথবা মঙ্গোলিয়াকে বিবেচনায় নিয়েছিলেন। অবশেষে বৈঠকের জন্য সিঙ্গাপুরকেই চূড়ান্তভাবে বেছে নেয়া হলো।

সিঙ্গাপুরের পররাষ্ট্র বিষয়ক মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, তারা বৈঠকের আয়োজক দেশ হতে পেরে আনন্দিত। এ বৈঠকের মধ্য দিয়ে কোরিয়া উপদ্বীপে শান্তির সম্ভাবনা জেগে উঠবে বলেই তারা আশাবাদী।

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সিঙ্গাপুরের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক আছে। উত্তর কোরিয়ার সঙ্গেও সিঙ্গাপুরের কূটনৈতিক সম্পর্ক আছে। তবে উত্তর কোরিয়ার ওপর আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা কঠোর হওয়ার পর গতবছর নভেম্বরে দেশটির সঙ্গে সব ধরনের বাণিজ্য স্থগিত করেছে সিঙ্গাপুর।

উত্তর কোরিয়ার কোনো নেতার সঙ্গে এর আগে ক্ষমতাসীন কোনো মার্কিন প্রেসিডেন্টের বৈঠক হয়নি। ধারণা করা হচ্ছে, ট্রাম্প ও কিম জং-উনের বৈঠকে উত্তর কোরিয়ার পরমাণু অস্ত্র কর্মসূচি নিয়ে মূল আলোচনা হবে।

২০০৬ সাল থেকে ধারাবাহিকভাবে পরমাণু পরীক্ষা চালিয়ে আসছে উত্তর কোরিয়া। আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা ও নিন্দার মুখে দেশটি দাবি করে আসছে যে, রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তার জন্যই তাদের পরমাণু অস্ত্র প্রয়োজন। যুক্তরাষ্ট্র চায় পরমাণু অস্ত্র কর্মসূচি থেকে পুরোপুরি সরে আসুক উত্তর কোরিয়া।

ad