সিরিয়ার পূর্ব ঘৌটায় রাসায়নিক হামলায় নিহত ৭০

Syria, chemical attack, 70 killed,
ad

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: সিরিয়ার পূর্ব ঘৌটায় বিষাক্ত রাসায়নিক হামলায় অন্তত ৭০ জন নিহত হয়েছেন। এছাড়া গুরুতর আহত হয়েছেন শতাধিক।

শনিবার (৭ এপ্রিল) বিদ্রোহীদের নিয়ন্ত্রিত পূর্ব ঘৌটার দৌমা এলাকায় ভয়াবহ রাসায়নিক হামলার ঘটনা ঘটে বলে উদ্ধারকর্মী ও চিকিৎসকদের বরাতে জানিয়েছে বিবিসি।

স্থানীয় বেশ কিছু মেডিক্যাল, পর্যবেক্ষণ সংস্থা এবং মানবাধিকার সংস্থা রাসায়নিক হামলার খবর নিশ্চিত করেছে। তবে হতাহতের সংখ্যা নিয়ে দ্বিমত দেখা গেছে। ওই অঞ্চলে আসলেই কি ঘটছে তা পরিস্কার নয়।

স্বেচ্ছাসেবী উদ্ধারকারী সংস্থা হোয়াইট হেলমেট এক টুইটে বেশ কিছু মরদেহ পড়ে আছে এমন একটি ভবনের ছবি প্রকাশ করেছে। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা ব্যক্ত করেছে সংস্থাটি।

Syria, chemical attack, 70 killed,

হোয়াইট হেলমেটসের প্রধান রায়েদ আল সালাহ বলেন, ক্লোরিন গ্যাস এবং আরও কিছু শক্তিশালী গ্যাস দৌমায় নিক্ষেপ করা হয়েছে। হোয়াইট হেলমেটের স্বেচ্ছাসেবকরা জনগণকে যথাসাধ্য সাহায্য করার চেষ্টা করছে। কিন্তু আহতের উদ্ধার করে পায়ে হেঁটে নিরাপদ স্থানে নিয়ে যেতে হচ্ছে কেননা বেশিরভাগ গাড়ি ও পরিসেবা কেন্দ্র এলাকার বাইরে চলে গেছে।

দেশটির বিদ্রোহী গ্রুপ এ ঘটনায় সরকারি বাহিনীকে দোষারোপ করে বলেছে, বেসামরিক লোককে লক্ষ্য করে এ হামলা চালানো হয়েছে। সরকারবিরোধী ঘৌটা মিডিয়া সেন্টার টুইট করেছে যে, এক হাজারের বেশি মানুষ এই রাসায়নিক হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। একটি পিপের মধ্যে করে হেলিকপ্টার থেকে একটি বোমা ফেলা হয় সেখানে। ওই পিপেতে বিষাক্ত রাসায়নিক সারিন ছিল বলে বলা হচ্ছে।

যদিও সিরিয়া সরকার রাসায়নিক হামলার এই অভিযোগকে মিথ্যা বলে উল্লেখ করেছে।

মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলছে, তারা সাম্প্রতিক ভয়াবহ হামলা সম্পর্কে তথ্য পর্যবেক্ষণ করছে। তারা আরও বলেছে, রাসায়নিক হামলা ব্যবহার করা হয়ে থাকলে সিরিয়ার মিত্র হিসেবে যুদ্ধ করা রাশিয়াকেই দায়ী করা উচিৎ।

তারা আরও জানিয়েছে, নিজেদের লোকদের ওপর রাসায়নিক অস্ত্র দিয়ে আক্রমণ করার ইতিহাস রয়েছে সিরিয়ার। অগণিত সিরিয়ানদের ওপর রাসায়নিক হামলা করার দায় নিতে হবে রাশিয়াকে।

ad