প্রেম টিকিয়ে রাখতে যে বিষয়গুলি এড়িয়ে চলবেন

Couple in love
ad

জাগরণ ডেস্ক: প্রেম একটি জটিল বিষয়। প্রত্যেকটা প্রেমেই কিছু জটিল সময় আসে, যখন মনে হয় আর না এবার সম্পর্কের ইতি টানতে হবে। তবে কিছু বিষয় এড়িয়ে চললে প্রেমের ক্ষেত্রে এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম।

বিষেষজ্ঞারা বেশ কিছু বিষয় বাতলে দিয়েছেন যা এড়িয়ে চললে সম্পর্কে কোনো টানাপোড়ন সৃষ্টি হবে না। তাহলে দেখে নেওয়া যাক বিষয়গুলো।

মিথ্যা: সাধারণত সঙ্গীকে খুশি রাখতে প্রায়ই মিথ্য বলতে হয়। সবাই ভাবেন ছোট একটি মিথ্যায় যদি সঙ্গী খুশি হয় তাহলে দোষের কি? তবে এ কাজটি ভুলেও করা যাবে না। কারণ সঙ্গী যদি একবার বুঝে ফেলেন আপনি মিথ্য বলেছেন তাহলে সে ধরেই নিবে প্রায়ই আপনি তার সাথে মিথ্যা বলেন। আর এ থেকেই জন্ম নেবে অবিশ্বাস। যার পরিণতি সুখকর নয়। তাই সম্পর্কে মিথ্যা জিনিসটা একেবারেই ঢুকতে দেয়া যাবে না।

ব্যক্তিগত বিষয়ে হস্তক্ষেপ: সঙ্গীর ব্যক্তিগত বিষয়গুলোতে হস্তক্ষেপ করা বন্ধ করতে হবে। কারণ সবারই নিজস্ব স্বাধীনতা আছে। কারো স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করলে সে অবশ্যই বিষয়গুলো ভালো চোখে দেখবে না। তাই এই বিষয়টি এড়িয়ে চলবেন।

সন্দেহ: অকারণে সন্দেহ একটি বাজে বিষয়। মূলত বিশ্বাসের উপর ভর দিয়েই দাঁড়ায় যেকোনো প্রেমের সম্পর্ক। আর যদি কোনোভাবে সামান্য পরিমাণ সন্দেহও ঢুকে পড়ে সম্পর্কের ঘরে, তবে সেই সম্পর্ক টিকিয়ে রাখা হয়ে পড়ে মুশকিল। সন্দেহ থেকেই শুরু হয় যত অশান্তি। তারপর একসময় টিকতে না পেরে স্থায়ী ব্রেক-আপ। তাই অকারণে সন্দেহ করা বন্ধ করতে হবে।

বাধা: সকলেরই নিজস্ব কিছু স্বপ্ন থাকে। আর ভালো সঙ্গী কখনওই আপনার স্বপ্নের পথে বাধা হয়ে দাঁড়াবেন না। বরং আপনাকে এগিয়ে যাওয়ার উৎসাহ দেবে। কিন্তু  যখন সঙ্গী দেখবেন আপনি এ বিষয়ে সমস্যা তৈরি করছেন তখন সে সেটা সহ্য করবে না। এ জন্য সঙ্গীর নিজস্ব ইচ্ছায় বাধা না দেয়াই বুদ্ধিমানের কাজ।

অন্য নারী/পুরুষের সাথে অতিরিক্ত যোগাযোগ: আপনি যদি একটি প্রেমের সম্পর্কে থাকেন তাহলে পুরুষ হলে অবশ্যই অন্য নারীদের সাথে অতিরিক্ত মাখামাখি বন্ধ রাখতে হবে। আর যদি নারী হয়ে থাকেন তাহলে পুরুষদের সাথে। কারণ সঙ্গী কখনোই চাইবে না আপনি অন্য কাউকে তার চেয়ে বেশি মূল্য দেন।

সম্পর্ক নিয়ে লুকোচুরি: আপনি যদি কোনো সম্পর্ক থোকেন তা নিয়ে অবশ্যই লুকোচুরি করবেন না।এতে সঙ্গীর মনে বিরূপ প্রভাব পড়বে। সে ভেবে নিবে আপনি সম্পর্কটা লুকিয়ে রাখতে চাইছেন। তাই এই বিষয়টি এড়িয়ে চলবেন। আর যদি সম্পর্ক কোনো কারণে গোপন রাখতে চান তাহলে বিষয়টি নিয়ে সঙ্গীর সঙ্গে আণোচনা করুন। তাকে বিষয়টি বুঝিয়ে বলুন।

ad