মজাদার ৬ হালুয়া তৈরির পদ্ধতি

Shab E barat , various types, Halua
ad

জাগরণ ডেস্ক: পবিত্র শবে বরাতে আমরা ইবাদতের পাশাপাশি বিভিন্ন ধরণের রান্না করি। আর এই রান্নার বড় একটা অংশ নানা স্বাদের হালুয়া। জেনে নিন বেশকিছু হালুয়া তৈরির পদ্ধতি।

বুটের ডালের হালুয়া:

উপকরণ: আধা কেজি বুটের ডাল, এক কাপ ঘন দুধ (জ্বাল দিয়ে দুই কাপকে এক কাপ করতে হবে), এলাচ, দারুচিনি, তেজপাতা, পরিমাণমতো ঘি, হাফ কাপ তেল, কিশমিশ, চিনি।

প্রস্তুত প্রণালী: বুটের ডাল পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। ভালোমতো ভিজে গেলে সিদ্ধ করে নিন। সিদ্ধ বুটের ডাল বেটে বা ব্লেন্ড করে এক কাপ গরম ঘন দুধ দিয়ে মাখিয়ে পেষ্ট/কাই বানিয়ে নিন। চুলায় পাত্র দিয়ে দুই চামচ ঘি এবং হাফ কাপ তেল গরম করে তাতে কয়েকটা এলাচ, দারুচিনি ও তেজপাতা দিয়ে দিন। তেল ভালো গরম হলে বুটের ডালের কাই দিয়ে দিন এবং ভালো করে মিশিয়ে দিন।

এবার চিনি দিন এবং নাড়তে থাকুন। হালুয়া রান্নায় এই অংশটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং বিপদজনক। খেয়াল রাখতে হবে নাড়তে নাড়তে যখন ঘন হচ্ছে তখন যেন পুড়ে না যায়। এভাবে নাড়তে নাড়তে হালুয়ায় পানি শুকিয়ে গেলেই হালুয়া তৈরি হয়ে গেল। এরপর পছন্দমতো কেটে বরফি করে পরিবেশন করতে পারেন।

গাজরের হালুয়া

উপকরণ: গাজর দুই কাপ (গ্রেট করা), ছানা এক কাপ, ঘন দুধ এক কাপ, ডিম দুইটি (ফেটানো), চিনি দেড়কাপ, ঘি আধা কাপ, পেস্তা বাদাম কুচি দুই টেবিল চামচ, কাঠবাদাম কুচি দুই টেবিল চামচ, ক্রাশ করা কাজুবাদাম দুই টেবিল চামচ, কিশমিশ দুই টেবিল চামচ, মাওয়া দুই টেবিল চামচ, কেশর সিকি চা চামচ, এলাচ গুঁড়া আধা চা চামচ, গোলাপ জল তিন চা চামচ, তরল দুধ এক টেবিল চামচ।

প্রস্তুত প্রণালী: গাজর হালকা ভাপ দিয়ে নিন। এবার প্যানে ঘি দিয়ে গাজর ভুনে নিন। তারপর চিনি ও ঘন দুধ দিয়ে নাড়ুন। কিছুক্ষণ পর ফেটানো ডিম দিন এবং নাড়তে থাকুন। এরপর কিছু বাদাম রেখে সব রকম বাদাম, কিশমিশ, মাওয়া, কেশর (দুধে ভিজানো) ও গোলাপ জল দিয়ে নাড়ুন। হালুয়া প্যানের গা ছেড়ে এলে ঘি মাখানো ডিশে ঢেলে সমান করে বাদাম কুচি ছড়িয়ে দিন অথবা কিছুটা ঠাণ্ডা হলে লাড্ডু আকারে গড়ে পেস্তা কুচি দিয়ে সাজিয়ে নিন। ব্যস, তৈরি হয়ে গেল গাজরের হালুয়া।

বাদামের হালুয়া

উপকরণ: কাজু বাদাম ২ কাপ, ছানা ২ কাপ, চিনি ২ কাপ, এলাচ গুঁড়া সিকি চা চামচ, ঘি আধা কাপ, ময়দা ১ টেবিল চামচ, কিসমিস ১ টেবিল চামচ, কাজু ও পেস্তা বাদাম সাজানোর জন্য।

প্রস্তুত প্রণালী: কাজু বাদাম হালকা ভেজে তিন-চার ঘণ্টা পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। পানি থেকে তুলে কাজু বাদাম ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করে নিন। এবার চুলায় পাত্রে ঘি দিয়ে কাজু বাদাম ও ছানা দিয়ে ভাজতে থাকুন এবং চিনি দিন। দ্রুত নাড়তে থাকুন। ময়দা, এলাচ গুঁড়া দিন। হালুয়া হয়ে এলে প্লেটে সাজিয়ে ওপরে কিসমিস, কাজু ও পেস্তা বাদাম দিয়ে সাজিয়ে পরিবেশন করুন।

কাচাঁ পেঁপের হালুয়া

উপকরণ: কাচাঁ পেঁপে সেদ্ধ করে বাটা- ১ কাপ চিনি- ২ কাপ ছানা- ১ কাপ মাওয়া- ১ কাপ ঘি- ২ টেবিল চামচ কিসমিস- পরিমাণ মতো গোলাপজল- পরিমাণ মতো সবুজ রং(খাদ্যে উপযোগি)- সামান্য এলাচ দারচিনি- গুঁড়ো আধা চা চামচ

প্রস্তুত প্রণালী: পাত্র চুলায় দিয়ে তেল ও ঘি গরম করতে হবে। এলাচ, দারচিনি দিয়ে একটু ভাজা হলে মাওয়া, ছানা ও চিনি দিয়ে দিতে হবে। এবার সেদ্ধ করে বেটে রাখা পেঁপে দিয়ে নাড়তে হবে। পছন্দ মতো রঙ মিশিয়ে নাড়তে থাকুন যতক্ষন না পর্যন্ত হালুয়া পাত্রের গা ছেড়ে দেয়। নামানোর আগে গোলাপজল মিশিয়ে নেড়ে নিন। এবার চুলা থেকে নামিয়ে ছাঁচ দিয়ে সন্দেশ আকৃতিতে কেটে কিসমিস দিয়ে পরিবেশন করুন মজাদার কাচাঁ পেঁপের হালুয়া।

চকলেট হালুয়া

উপকরণ: সুজি আধা কাপ, বেসন আধা কাপ, চিনি এক কাপ, ঘি আধা কাপ, কোকো পাউডার ২ টেবিল চামচ, চকলেট সিরাপ ১ টেবিল চামচ, জয়ফল, দারচিনি গুঁড়ো সামান্য, ডিম ৩টা, পানি ২ কাপ।

প্রস্তুত প্রণালী: ডিম, কোকো পাউডার, চকলেট সিরাপ, চিনি ও পানি এক সঙ্গে ব্লেন্ড করুন। কড়াইয়ে ঘি ঢেলে গরম করে সুজি, ঢালুন। সুজি ভাজা হয়ে গেলে বেসন দিয়ে নাড়তে থাকুন। এরপর ব্লেন্ড করা মিশ্রণ ঢেলে দিন। পানি শুকিয়ে তেল ওপরে ভেসে উঠলে জয়ফল-দারচিনি গুড়া মিশিয়ে চুলা থেকে নামান। ঠাণ্ডা হলে সাজিয়ে পরিবেশন করুন।

পাকা আমের হালুয়া

উপকরণ: পাকা আমের ক্বাথ বা পাল্প ১ কাপ, চিনি আধা কাপ, সুজি ৪ টেবিল চামচ, ঘি আধা কাপ, এলাচ গুঁড়া সামান্য, ঘি ২ টেবিল চামচ, মাওয়া ২ টেবিল চামচ, বাদাম পছন্দমতো।

প্রস্তুত প্রণালি: আমের সঙ্গে সুজি, এলাচ গুঁড়া মিশিয়ে নিতে হবে। এই মিশ্রণ ঘিতে ভেজে মাওয়া ও চিনি দিতে হবে। এবার বাদাম দিতে হবে। নামিয়ে পছন্দমতো সাজিয়ে পরিবেশন করুন।

ad