ব্রণ ও অবাঞ্ছিত লোম অপসারণে ডিমের ব্যবহার জেনে নিন

ডিম আমাদের দৈনন্দিক খাবারের তালিকার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। প্রতিদিন একটি ডিম খান না এমন মানুষ পাওয়া ভার। তবে ডিম যে শুধু খাদ্য তা নয় এটি ব্যবহার করা যায় প্রসাধনী হিসেবে। ডিম তৈলাক্ত ত্বক, ব্রণ, বলিরেখাসহ আরও নানা সমস্যার সমাধান দিতে পারে।

দেখে নেওয়া যাক কীভাবে এই সমস্যার সমাধান দেবে ডিম:

সূর্য, দূষণ, অত্যধিক ধূমপান ও অ্যালকোহল, স্থূলতা, দ্রুত ওজন কমানো, খাদ্য তালিকাগত অভ্যাস, রাসায়নিক প্রসাধনী পণ্যের ব্যবহারে ত্বকের এলাস্টিন এবং কোলাজেন নষ্ট হয়ে যায়। এর ফলে তৈলাক্ত ত্বক, ব্রণ, বলিরেখা সহ আরও নানা সমস্যা দেখা যায়। ডিমের সাদা অংশ, ত্বক থেকে অতিরিক্ত তেল শোষণ করে। এমনকী ডিমের সাদা অংশের মধ্যে থাকা ভিটামিন এবং খনিজ ত্বকের জন্য উপকারী হতে পারে।

ত্বক টানটান করা: ডিমের সাদা অংশ চামড়া টানটান করতে পারে, ত্বকের অতিরিক্ত ছিদ্র ভরাট করে। সাদা মাস্কের সঙ্গে আপনি লেবুর রসও যোগ করতে পারেন। আপনার পুরো মুখে এই তরল অংশ প্রয়োগ করুন। শুকিয়ে গেলে উষ্ণ পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে দুবার এই পদ্ধতি ব্যবহার করতে পারেন।

তৈলাক্ত ত্বকের সমস্যার সমাধান: তৈলাক্ত ত্বকে ব্রণ হতে পারে। চামড়া টানটান করা এবং ত্বকের ছিদ্র কমানোর বৈশিষ্ট্য থাকার কারণে, ডিমের সাদা অংশ অত্যধিক তৈলাক্ত ত্বকের সমস্যা থেকে মুক্তি দেয়। ডিমের সাদা পাতলা স্তর দিয়ে আপনার মুখে প্রলেপ দিন এবং শুকিয়ে দিন। একবার শুকিয়ে গেলে, ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। মুখ মোছার জন্য একটি নরম তোয়ালে ব্যবহার করুন।

ব্রণ: ব্রণ তৈলাক্ত ত্বক, ময়লা এবং সেবামের নিঃসরণের ফলে সৃষ্ট হতে পারে। ডিমের সাদা অংশ আপনার ত্বকে অতিরিক্ত তেল নিয়ন্ত্রণে আশ্চর্যজনক ভালো কাজ করে। এটি ব্রণ প্রতিরোধে ব্যবহার করা যেতে পারে। ব্রণ প্রভাবিত অংশগুলিতে ডিমের সাদা অংশ প্রয়োগ করার সময় কিছু সতর্কতা অবলম্বন করা প্রয়োজন। কঠিন ব্রাশ ব্যবহার করবেন না; পরিবর্তে আপনি পরিষ্কার আঙুলের ডগা দিয়ে সাদা অংশ প্রয়োগ করুন। ভালো ফলাফলের জন্য দই, দারুচিনি গুঁড়ো বা হলুদ যোগ করতে পারেন।

মুখের অবাঞ্ছিত লোম অপসারণ: ডিমের সাদা অংশ সাধারণত মুখের ক্ষুদ্র অবাঞ্ছিত লোম অপসারণে উপকারী। এই মাস্ক সত্যিই মুখের অবাঞ্ছিত লোমের সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পেতে সাহায্য করে।

মন্তব্য লিখুন :