অতিরিক্ত ভাড়া; আরিচা-কাজিরহাট নৌ-রুটে স্পিডবোট চলাচল বন্ধ

Manikganj speed boat
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগে আরিচা-কাজিরহাট নৌ-রুটে স্পিডবোট চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে প্রশাসন।

বৃহস্পতিবার (২২ জুন) দুপুর ২টার দিকে শিবালয় থানা পুলিশ স্পিডবোট চলাচল বন্ধ করে দেয়।

জানা যায়, সকাল থেকে আরিচা-কাজিরহাট নৌ-রুটে চলাচলরত স্পিডবোটে যাত্রী প্রতি পূর্বের ভাড়া ২শ’ টাকার স্থলে ৩শ’ টাকা করে আদায় শুরু হয়। দুপুরের দিকে ভাড়া নিয়ে যাত্রীদের সাথে স্পিডবোট মালিক পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে মালিকদের একটি গ্রুপ অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের বিপক্ষে অবস্থান নেয়। এ নিয়ে মালিকদের বিবাদমান দু’গ্রুপের মধ্যে তুমুল হট্টগোল লেগে যায়। পরে পরিস্থিতি সামাল দিতে শিবালয় থানা পুলিশ স্পিডবোট চলাচল বন্ধ করে দেয়।

এ ব্যপারে শিবালয় থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুল ইসলাম জানান, যাত্রী দুর্ভোগ লাঘবে এবং আইনশৃঙ্খলা বজায় রাখতে দুপুর ২টা থেকে স্পিডবোট চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়।

আরিচা-কাজিরহাট স্পিডবোট মালিক সমিতি’র সভাপতি আলহাজ্জ্ব আব্দুর রহিম খান জানান, ঈদের ভীড়ের  সময়ে আরিচা থেকে যাত্রী বোঝাই হলেও অপর দিক থেকে যাত্রী ছাড়াই আসতে হয়। বিধায় খরচ সমন্বয় করতে পূর্বের ভাড়ার অতিরিক্ত ১শ’ টাকা আদায়ের সিদ্ধান্ত হয়।

স্পিডবোট মালিক সমিতি’র সাবেক সভাপতি ও শিবালয় উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রেজাউর রহমান খান বলেন, কোন সিদ্ধান্ত ছাড়াই ভাড়া বৃদ্ধি করা হয়। আমরা এর প্রতিবাদ করলে প্রশাসন স্পিডবোট চলাচল বন্ধ করে দেয়।

উল্লেখ্য, স্থানীয় সংসদ সদস্য এ.এম. নাঈমূর রহমান দূর্জয়ের পৃষ্টপোষকতায় আরিচা ও কাজিরহাটের স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা এবং প্রভাবশালী ব্যবসায়ীদের যৌথ উদ্যোগে ২০১৫ সালে  স্পিডবোট চালু করা হয়। বর্তমানে এ নৌ রুটে ১৯টি স্পিডবোট চলাচল করছে। এসব স্পিডবোট চলাচলে বাংলাদেশ অভ্যান্তরীণ নৌ-চলাচল কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) এর বৈধ কোন রুট পারমিট নেই এবং ভাড়াও নির্ধারণ করা হয়নি।

ad