আজও সারাদেশে বজ্রপাতে নিহত ১১

বজ্রপাত ২
ad

জাগরণ ডেস্ক: মঙ্গলবার (১ মে) সারাদেশের ছয় জেলায় বজ্রপাতে ১১ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এ সময় আহত হয়েছে আরও অন্তত পাঁচজন।

সুনামগঞ্জ: জেলার পৃথক স্থানে বজ্রপাতে অন্তত চারজনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও তিনজন।

নিহতরা হলেন- জামালগঞ্জ উপজেলার ফেনারবাক ইউনিয়নের খোজারগাঁও গ্রামের মৃত কৃষ্ণধন তালুকদারের ছেলে কমলা কান্ত তালুকদার (৫৫), একই উপজেলার ভীমখালী ইউনিয়নের কলকতখাঁ গ্রামের মৃত মুক্তার আলীর ছেলে হিরন মিয়া (৩০), সদর উপজেলার মোল্লাপাড়া ইউনিয়নের আব্দুল হাশেমের ছেলে আব্দুর রশিদ (৪৫) ও বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার ধনপুর ইউনিয়নের মেরুয়াখলা গ্রামের সাইদুর রহমানের ছেলে আলম মিয়া (৫০)।

জানা যায়, মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় জামালগঞ্জের খুঁজারগাঁও গ্রামের বাড়ির সামনের হাওরে কাজ করা অবস্থায় বজ্রপাতের ঘটনায় কমলাকান্ত তালুকদার ঘটনাস্থলেই নিহত হন। এ সময় কমলাকান্তের বড় ছেলে জামালগঞ্জ ডিগ্রি কলেজের ছাত্র প্রিন্স তালুকদার (২০), ছোট ছেলে সৈকত তালুকদার (১৫) ও একই গ্রামের পাণ্ডব তালুকদারের ছেলে জ্ঞান রঞ্জন তালুকদার (৪৫) গুরুতর আহত হয়।

একই সময়ে উপজেলার ভীমখালী ইউনিয়নের কলকতখাঁ গ্রামের একটি হাওরে কাজ করতে গিয়ে বজ্রপাতে হিরন মিয়া নামের একজন বজ্রপাতে ঘটনাস্থলেই নিহত হন।

এছাড়া, সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার দেখার হাওরে কাজ করার সময় বজ্রপাত হলে আব্দুর রশিদ নামে একজন নিহত ও ধনপুর ইউনিয়নের মেরুয়াখলা গ্রামে আলম মিয়া নামে একজন নিহত হয়।

সিলেট: জেলার সীমান্তবর্তী উপজেলা কানাইঘাটে বজ্রপাতে দুই কিশোরের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার বেলা ২টার দিকে উপজেলার বড়চতুল ইউনিয়নের উপরবড়াই গ্রামের পাশের হাওরে বজ্রপাতে তাদের মৃত্যু হয়।

তারা হলো, কানাইঘাটের উপরবড়াই গ্রামের করিম আলী ওরফে বতাইয়ের ছেলে তোফায়েল আহমদ তামিম ও ফখরুল ইসলামের ছেলে সালমান আহমদ।

নওগাঁ: জেলার বদলগাছায় ধান কাটার সময় বজ্রপাতে এক শ্রমিকের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। এ সময় গুরুতর আহত হয়েছে আরও এক শ্রমিক।

দুপুরে উপজেলার নজিপুর-বদলগাছি আঞ্চলিক মহাসড়কের মাতাজিহাট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহতের নাম জানা যায়নি। তবে তার বাড়ি পাবনা জেলায় বলে জানিয়েছে শ্রমিকেরা।

বগুড়া: জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার মেঘাখাদবো গ্রামে বজ্রপাতে এক কৃষক নিহত হয়েছে।

নিহত ব্যক্তির নাম তমিজুর রহমান (৪৭)। সে একই গ্রামের তবিবর শেখের ছেলে। সকাল ৮টার দিকে বাড়ির পাশে শিমক্ষেতে কাজ করার সময় বজ্রপাতে তিনি ঘটনাস্থলেই মারা যান।

গাইবান্ধা: জেলার সাঘাটা উপজেলার কামারপাড়া গ্রামে বজ্রপাতে মা ও ছেলের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় গোলজার রহমান (৬০) নামে এক ব্যক্তি আহত হন।

হলেন- গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার পূর্ব কামারপাড়ার আব্দুস সালামের স্ত্রী বিলকিস বেগম (৪০) ও তার ছেলে সোহেল (১৫)।

শেরপুর: সদর উপজেলার বউলি বিলে ধান কাটার সময় সকাল সাড়ে নয়টার দিকে বজ্রপাতে এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে।

নিহতের নাম হোসাইন মিয়া ওরফে লাল চান (২৮)। সে চান্দেরনগর চক্কারপাড়া গ্রামের ছমির উদ্দিনের ছেলে। এ দুর্ঘটনায় আহত চান্দেরনগর গ্রামের রশীদ মিয়ার ছেলে রহুল আমীন।

এর আগে গত রবিবার বজ্রপাতে সারাদেশে অন্তত ২১ জন ও সোমবার অন্তত ১৫ জন নিহত হয়।

ad