আটদিন পর শান্ত ঢাকা

dhaka roads
ad

জাগরণ ডেস্ক: গত ২৯ জুলাই বিমানবন্দর সড়কে বাস চাপায় দু্ই শিক্ষার্থী নিহতের প্রতিবাদে টানা আটদিন ছাত্র আন্দোলনের পর আজ স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরেছে রাজধানী ঢাকা। আজ রাজধানীর কোথাও অবরোধ চোখে পড়েনি। সড়কে গণপরিবহনসহ সকল ধরনের যান চলছে। যদিও তা সংখ্যায় খুবই কম।

মঙ্গলবার (৭ আগস্ট) রাজধানীর ধানমন্ডি, মিরপুর, বাড্ডা, উত্তরা, রামপুরা, সাইন্স ল্যাব ও পাবলিক বিশ্ববিদ্যায়গুলোতে ছাত্র অবরোধ ছিল না।

এসব এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, সড়ক আগের মতোই স্বাভাবিক আছে। কোথাও কোনো ছাত্র অবরোধ নেই। এমনকি সারাদিন কোনো ছাত্র জমায়েতও দেখা যায়নি। এসব এলাকার স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ক্লাস শেষে বাড়ি ফিরে যাচ্ছে। ছাত্রদের পাশাপাশি এসব এলাকায় সরকারদলীয় লোকজনের জমায়েতও দেখা যায়নি।

তবে প্রত্যেকটি এলাকাতেই পুলিশের উপস্থিতি ছিল লক্ষ্যনীয়। ধানমন্ডিতে অবস্থিত প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে প্রচুর দাঙ্গা পুলিশ দেখা গেছে। বিভিন্ন পয়েন্টে পয়েন্টে রয়েছে অতিরিক্ত পুলিশ।  সাইন্স ল্যাব এলাকাতেও মোতায়েন রয়েছে বিপুল পরিমাণ পুলিশ। এছাড়া, বসুন্ধারা গেইটের আশেপাশে প্রচুর পুলিশ মোতায়ের রয়েছে। ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির সামনেও রয়েছে বিপুল পরিমাণ পুলিশ।

এদিকে, আন্দোলনের প্রেক্ষিতে ট্রাফিক সপ্তাহ ঘোষণা করায় সড়কে প্রচুর ট্রাফিক পুলিশ দেখা গেছে। তারা ব্যক্তিগত গাড়িসহ গণপরিবহনের চালকদের লাইসেন্স ও গাড়ির কাগজপত্র পরীক্ষা করছেন। এছাড়া, ঢাকা মহানগর পুলিশের একটি মোবাইল টিম এবং বিআরটিএ’র ৫টি মোবাইল কোর্ট রাজধানীতে পরিচালিত হচ্ছে।

গত ২৯ জুলাই দুপুরে রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের অদূরে বিমানবন্দর সড়কে বাস চাপায় রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী নিহত হয়। আহত হয় আরও ৭ থেকে ৮ জন। বিমানবন্দর সড়কের বামপাশে বাসের জন্য অপেক্ষা করার সময় জাবালে নূর পরিবহনের একটি বাস তাদের চাপা দিলে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

এরপর থেকে নিরাপদ সড়কের দাবিতে গত ৬ আগস্ট পর্যন্ত রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় সড়ক অবরোধ ও বিক্ষোভ মিছিল করে শিক্ষার্থীরা। প্রথমে স্কুল কলেজের শিক্ষার্থী ও পরে বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা অবরোধে যোগ দেয়। এ সময় শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পুলিশ ও সরকারদলীয় লোকের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষ চলে।  এতে অন্তত ২০০ লোক আহত হয়।

ad