ঈদ উপলক্ষে ট্রেনের অগ্রিম টিকেট বিক্রি শুরু

Train, advance ticket, sell, start,
ad

জাগরণ ডেস্ক: পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে যাত্রী পরিবহনে ট্রেনের অগ্রিম টিকেট বিক্রি শুরু হয়েছে। আজ বিক্রি করা হচ্ছে ১০ জুনের টিকিট।

শুক্রবার (১ জুন) সকাল ৮টায় সার্ভা‍র জটিলতা রাত থেকে অপেক্ষায় থাকা টিকেট প্রত্যাশীদের অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে ঢাকার কমলাপুর ও চট্টগ্রাম রেলস্টেশন থেকে ট্রেনের আগাম টিকেট বিক্রি শুরু হয়। স্টেশনের ২৬টি কাউন্টার থেকে ঈদের টিকেট বিক্রি হচ্ছে।

নির্ধারিত সময়ের একটু পরে টিকেট বিক্রির বিষয়ে সিতাংশু চক্রবর্ত্তী বলেন, এটাকে দেরি বলা যাবে না। কারণ সকাল ৮টায় একযোগে সব কাউন্টার থেকে সার্ভারে প্রবেশ করার কারণে একটু স্লো থাকে। পরক্ষণে ঠিক হয়ে যায়।

তিনি বলেন, কালোবাজারি রোধ ও যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবেলায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নিয়োজিত রয়েছে। আশা করি যাত্রীরা নির্বিঘ্নে টিকেট সংগ্রহ করতে পারবে। আর যেকোনো কারোবাজারি চোখে পড়লে পুলিশে খবর দেয়ার জন্য পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।

সকাল ৮টা ৩ মিনিটের দিকে দুটি লাইন এলোমেলো হয়ে যাওয়া নিয়ে টিকিট প্রত্যাশীদের মধ্যে কিছুটা হৈ চৈ দেখা দিলে দায়িত্বরত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

ভোর থেকে কমলাপুর রেলস্টেশনে টিকেট প্রত্যাশীদের উপচে পড়া ভীড় লক্ষ্য করা গেছে। বিগত বছরগুলোতে ঢাকা বিমানবন্দর স্টেশন থেকে অগ্রিম টিকেট দেয়া হলেও এবার শুধু কমলাপুরে মিলছে অগ্রিম টিকেট।

এদিকে লাইনে দাঁড়িয়ে থেকে যারা কাউন্টার খোলার পরপরই টিকেট হাতে পেয়েছেন তাদের সবার মুখে হাঁসি দেখা গেছে। কেউ কেউ উল্লাস করতে করতে স্টেশন ছাড়ছেন। কেউ পত্রিকা বিছিয়ে কাউন্টারের সামনে বসে, কেউবা গল্প-আড্ডার মধ্যে দিয়ে সময় কাটিয়েছেন। অপরদিকে স্টেশনের মাইকে কালোবাজারি রোধে বিভিন্ন সতর্কতা বার্তা জানানো হচ্ছে।

কাউন্টারে প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত টিকেট বিক্রি হবে। আগামী ৬ জুন পর্যন্ত ঈদের অগ্রিম টিকেট বিক্রি করা হবে। ১-৬ জুন এই ছয়দিনে ট্রেনের টিকিট দেয়া হবে ১০ জুন থেকে ১৫ জুন পর্যন্ত। একজন সর্বোচ্চ চারটি করে টিকেট ক্রয় করতে পারবেন এবং এই টিকেট ফেরতযোগ্য নয়। মোট টিকেটের ৭৫ শতাংশ কাউন্টারে এবং বাকি ২৫ শতাংশ টিকেট অনলাইনে বিক্রি করা হবে।

আর ঈদ উদযাপন শেষে কর্মস্থলে ফিরতি যাত্রীদের ১০ জুন দেয়া হবে ১৯ জুনের, ১১ জুন দেয়া হবে ২০ জুনের, ১২ জুন দেয়া হবে ২১ জুনের, ১৩ জুন দেয়া হবে ২২ জুনের, ১৪ জুন দেয়া হবে ২৩ জুনের এবং ১৫ জুন দেয়া হবে ২৪ জুনের ফিরতি টিকেট।

ঈদ উপলক্ষে এবার বিশেষ সাত জোড়া ট্রেন দেয়া হবে। এগুলো হলো ঢাকা-দেওয়ানগঞ্জ-ঢাকা রেলপথে দেওয়ানগঞ্জ স্পেশাল, চট্টগ্রাম-চাঁদপুর-চট্টগ্রাম রেলপথে চাঁদপুর স্পেশাল-১ ও চাঁদপুর স্পেশাল-২, রাজশাহী-ঢাকা-রাজশাহী রেলপথে রাজশাহী স্পেশাল, পার্বতীপুর-ঢাকা-পার্বতীপুর রেলপথে পার্বতীপুর স্পেশাল। এই পাঁচটি স্পেশাল ট্রেন ঈদের আগে ১৩ থেকে ১৫ জুন পর্যন্ত চলবে। ঈদের পরে চলবে ১৮ থেকে ২৪ জুন।

এ ছাড়া ঈদের দিন চলবে বাকি দুটি স্পেশাল ট্রেন। ভৈরববাজার-কিশোরগঞ্জ-ভৈরববাজার রুটে চলবে শোলাকিয়া স্পেশাল ১ ও ২ এবং ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ-ময়মনসিংহ রুটে চলবে শোলাকিয়া স্পেশাল ২।

ad