এমপির প্রতিনিধির বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ

MP, representative, rape, complain
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য, স্থানীয় সংসদ সদস্যের প্রতিনিধি ও জেলা জজকোর্টের আইনজীবী আনোয়ারুল হকের বিরুদ্ধে এক গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ব্যাপক সমালোচনার ঝড় উঠেছে।

বৃহস্পতিবার (১ জুন) এ ঘটনায় ওই গৃহবধূ লক্ষ্মীপুর বার কাউন্সিলে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

নির্যাতনের শিকার ওই গৃহবধূ (৩০) উপজেলার চরলরেন্স ইউনিয়নের করইতলা এলাকার এক প্রবাসীর স্ত্রী।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, পারিবারিক তুচ্ছ বিষয় নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে ওই গৃহবধূর সঙ্গে প্রবাসী স্বামীর বনিবনা হচ্ছিল না। যে কারণে প্রায় দু’বছর ধরে তিনি তোরাবগঞ্জ এলাকার বাবার বাড়িতে অবস্থান করছেন। দুই সন্তানের কথা চিন্তা করে ওই গৃহবধূ স্বামীর সঙ্গে ঝামেলা মেটাতে গত বছরের জুন মাসে থানার দ্বারস্থ হন।

ব্যাপারটি অতি দ্রুত সমাধানের জন্য তখন অনেকেই তাকে স্থানীয় সংসদ সদস্য মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ’র (আল মামুন) প্রতিনিধি শ্রমিক লীগ নেতা আনোয়ারুল হকের কাছে যেতে বলায় ওই গৃহবধূ আনোয়ারুল হকের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। তিনি গৃহবধূকে লক্ষ্মীপুরের বাসায় যেতে বলেন। ২৮ জুন সেখানে গিয়ে বিষয়টি খুলে বললে সাংসদের প্রতিনিধি তা দ্রুত সমাধান করে দেবেন বলে আশ্বাস দেন।

পরদিন সকালে তিনি ওই গৃহবধূকে তার বাসায় ডেকে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন। এভাবে মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে তিনি ওই গৃহবধূকে বিভিন্ন সময় বাসায় ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করেন। এক পর্যায়ে তিনি ওই গৃহবধূকে তার স্বামীকে ভুলে যেতে বলেন এবং নিজে বিয়ে করবেন বলে আশ্বস্ত করেন। এ আশ্বাস দিয়ে বিভিন্ন সময়ে একাধিকবার দৈহিক সম্পর্ক স্থাপন করে তিনি এখন বিয়ে না করে টালবাহানা করছেন।

বিষয়টি নিয়ে ওই গৃহবধূ স্থানীয় সংসদ সদস্যের কাছে একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েও কোনো সমাধান না পেয়ে নিরুপায় হয়ে জেলা বার কাউন্সিলে অভিযোগ দিয়েছেন বলে অভিযোগপত্রটিতে উল্লেখ করা হয়।

ভুক্তভোগী ওই গৃহবধূ বলেন, আমি আমার স্বামীকে ফিরে পেতে সমাধানের জন্য সংসদ সদস্যের প্রতিনিধি আনোয়ারুল হকের কাছে গিয়েছি। তিনি সমাধান না করে আমার সর্বনাশ করেছে। আমি এর বিচার চাই।

লক্ষ্মীপুর বার কাউন্সিলের সভাপতি  মো. জসিম উদ্দিন অভিযোগ পাওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

অভিযুক্ত আনোয়ারুল হক দাবি করেন, গৃহধূর অভিযোগটি সম্পূর্ণ মিথ্যা। তাকে রাজননৈতিকভাবে ফাঁসানোর জন্য এ অভিযোগ আনা হয়েছে। আমি রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার। বিষয়টি দ্রুত সমাধানের চেষ্টা চলছে।

ad