ঘূর্ণিঝড় মোরা’র আঘাতে লণ্ডভণ্ড বান্দরবান

Bandarban Mora
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: ঘূর্ণিঝড় মোরা’র আঘাতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ শতশত ঘরবাড়ি, গাছপালা, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বিধ্বস্ত হয়েছে বান্দরবানে। বিদ্যুৎ এর খুটি ভেঙে পড়ে বন্ধ রয়েছে পুরো জেলার বিদ্যুৎ সংযোগ।

মঙ্গলবার (৩০ মে) সকালে বান্দরবানের ওপর দিয়ে বয়ে যায় ঘূর্ণিঝড় মোরা। তবে এখনও কোন হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

জনপ্রতিনিধি ও স্থানীয়রা জানায়, ঘূর্ণিঝড় মোরা’র প্রভাবে জেলা সদর, নাইক্ষ্যংছড়ি, আলীকদম, লামা, রুমা, থানচি, রোয়াংছড়ি উপজেলায় ভারী বৃষ্টিপাত ও ঝড়ো বাতাসে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ইউনিয়ন পরিষদ ভবনসহ শতশত ঘরবাড়ি, গাছপালা বিধস্ত হয়েছে। বাতাসে ভেঙে পড়েছে অসংখ্য বিদ্যুৎ এর খুটি। এতে বন্ধ রয়েছে বান্দরবানে বিদ্যুৎ সরবরাহ। লামা উপজেলায় বৃষ্টিতে পাহাড় ধসের ঘটনাও ঘটেছে। তবে কোনো প্রাণহাণির ঘটনা ঘটেনি।

পৌর কাউন্সিলর লুভু প্রু মারমা বলেন, ঘুর্ণিঝড় মোরা’র আঘাতে উজানীপাড়া, মধ্যমপাড়ায় গাছপালা ও ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। পৌর শপিং কমপ্লেক্স মার্কেটসহ বাজারের অনেক দোকানপাট ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এছাড়াও শহরের বনরুপা পাড়া, বালাঘাটাসহ বিভিন্ন স্থানেও ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

Bandarban Mora ২আলীকদম উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কালাম বলেন, আলীকদমে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ শতশত ঘরবাড়ি ও গাছপালা ভেঙে পড়েছে বাতাসে। গাছপালা ভেঙে অভ্যন্তরীন সবগুলো রুটে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে পড়েছে।

ঘুমধুম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আজিজ বলেন, মোরা’র আঘাতে লণ্ডভণ্ড হয়ে পড়েছে মিয়ানমার সীমান্তবর্তী ঘুমধুম ইউনিয়ন। ইউনিয়ন পরিষদ ভবনের চালসহ বাজারের দোকানপাটের টিন বাতাসে উড়িয়ে নিয়ে গেছে।

বাইশারী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলম বলেন, ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাতে বাতাসে বাইশারী বাজারের বহু দোকানপাট ভেঙে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এছাড়াও রাবার বাগানের গাছপালা ভেঙে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

লামা উপজেলা চেয়ারম্যান থোয়াইনু অং চৌধুরী বলেন, লামা উপজেলায় বাতাসে গাছপালা ভেঙে বহু ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। রুপসী পাড়া ইউনিয়নে গাছ ভেঙে পড়ে ক্যাচিং থোয়াই (৪০) নামে একজন আহত হয়েছে। তাকে উদ্ধার করে চকরিয়া হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

জেলা প্রশাসক দিলীপ কুমার বণিক বলেন, ঘুর্ণিঝড় মোরা মোকাবেলায় বান্দরবানে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়। ঝুঁকিপূর্ণ স্থানগুলো থেকে লোকজনদের নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয়ায় কোন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা তৈরি করে প্রয়োজনীয় সরকারী সহযোগীতা দেয়া হবে।

ad