জাতিসংঘ কর্মকর্তা খুন: প্রেমিকা-স্বামী কারাগারে

jagoarn- UN official, murder, lover-husband, prison
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: কক্সবাজারের মহেশখালীর সোনাদিয়া সৈকত থেকে জাতিসংঘ কর্মকর্তা সোলিমান মুলাটের মৃতদেহ উদ্ধারের ঘটনায় একই অফিসের কর্মকর্তা জাফরীন আফসারী ও তার স্বামী রবিনকে আটক দেখিয়ে কারাগারে পাঠিয়েছে সদর মডেল থানা পুলিশ।

শুক্রবার (৩ আগস্ট) বেলা ১১টার দিকে ওই দম্পতিকে থানায় প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের পর ১৫৪ ধারায় কক্সবাজার জেলা কারাগারে প্রেরণ করা হয়।

এর আগে ইথুওপিয়ান নাগরিক সোলিমান মুলাটার মৃত্যুর ঘটনায় গত বৃহস্পতিবার সন্দেহভাজন হিসেবে বিকাল ৫টার দিকে কক্সবাজার শহরের কলাতলী এলাকার অভিজাত হোটেল ওশ্যান প্যারাডাইজ থেকে এই দম্পতিকে আটক করে পুলিশ। পরে জিজ্ঞাসাবাদে জাফরিন আফসারি স্বীকার করেছেন সোলিমানের সঙ্গে তার পরকীয়া ছিল।

কক্সবাজার সদর থানা পুলিশের ওসি ফরিদ উদ্দিন খন্দকার জানান, সোলিমান নিহতের ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। আটক জাফরিন আফসারি ও তার স্বামী রুবায়েত চৌধুরী রবিনকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

তিনি বলেন, মৃত উদ্ধার হওয়া সোলেমান মুলাটার মৃত্যু নিয়ে পুলিশের তদন্ত অব্যাহত রয়েছে। তাকে কি হত্যা করা হয়েছে, নাকি তিনি নিজেই আত্মহত্যা করেছে তা জানার চেষ্টা করছে পুলিশ। তবে পরকীয়ার বিষয়টি মাথায় রেখে কাজ করবে।

উল্লেখ্য, গত সোমবার সকাল থেকে ইউএনএইচসিআর এর কক্সবাজার কার্যালয়ের শরণার্থী সুরক্ষা বিষয়ক কর্মকর্তা সুলেমান মুলাটা নিখোঁজ হন। এ ঘটনায় ওইদিন রাতেই ইউএনএইচসিআর এর এক কর্মকর্তা থানায় জিডি করেন।

এর তিনদিন পর গত বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার দিকে মহেশখালীর সোনাদিয়া চ্যানেল পয়েন্টে জেলেদের জালে আটকা পড়া অবস্থায় সোলেমান মুলাটার মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়।

এ সময় মৃতদেহের সঙ্গে পাওয়া কিছু ডকুমেন্ট দেখে সোলেমান মুলাটার পরিচয় শনাক্ত করে পুলিশ। মৃতদেহটির মুখমণ্ডলসহ পুরো শরীর ফুলে বিকৃত হয়ে যায়।

পরে বিকালে এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে সোলিমান মুলাটার গার্লফ্রেন্ড জাফরিন আফসারি এবং তার স্বামী রুবায়েত চৌধুরী রবিনকে হোটেল থেকে আটক করে পুলিশ।

ad