ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ২০ কিলোমিটার যানজট

Dhaka-Chittagong highway, 20 kilometers, traffic congestion,
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মেঘনা সেতুর টোলপ্লাজা এলাকা থেকে শিমরাইল পর্যন্ত ২০ কিলোমিটার যানজটের সৃষ্টি হয়। এতে যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়।

সোমবার (১৪ মে) সকাল ৭টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত মহাসড়কের মেঘনা সেতু ও কাঁচপুর সেতু এলাকায় সরেজমিনে দেখা যায়, ১৪ কিলোমিটার এলাকায় পুরো জায়গা জুড়ে থেমে থাকে যানবাহনের সারি। যানবাহনের চাকা চলছে ধীর গতিতে।

মেঘনা সেতু থেকে লাঙ্গলবন্ধ সেতু ও কাঁচপুর সেতুর পশ্চিম প্রান্ত সিদ্ধিরগঞ্জের সাইনবোর্ড থেকে বন্দর উপজেলার কেওঢালা পর্যন্ত ১১ কিলোমিটার এলাকায় যানবাহনের চাকা এক ঘন্টা পরপর ঘুরছে।

ঢাকা থেকে কুমিল্লাগামী এশিয়া লাইন পরিবহনের চালক কামাল হোসেন জানান, সায়েদাবাদ থেকে সকাল ৭টায় ছেড়ে এসে মেঘনা সেতু পর্যন্ত আসতে ৫ ঘন্টা সময়ে লেগেছে। যানজট না থাকলে এটুকু দূরত্বের সড়ক পার হতে আমাদের সর্বাধিক ৪০ মিনিট সময় লাগতো।

চট্টগ্রামগামী হানিফ পরিবহনের যাত্রী নুসরাত ইসলাম ও জাকির হোসেন জানান, ঢাকা থেকে মেঘনা পার হতে ৫ ঘন্টা সময় নষ্ট হলো। এ সময়ের মধ্যে আমরা সাধারণত চট্টগ্রামে পৌঁছে যাই।

ট্রাক চালক আলী হোসেন জানান, ভোর ৫টা থেকে এ সড়কে যানজট শুরু হয়। মদনপুর থেকে মেঘনা সেতু পর্যন্ত আসতে ৩ ঘন্টা সময় নষ্ট হয়েছে।

বিভিন্ন পরিবহনের চালক ও পুলিশের সঙ্গে কথা বলে যানজটের কারণ অনুসন্ধান করে জানা যায়, মূলত মেঘনা ও দাউদকান্দি সেতুর টোলপ্লাজায় টিকেট দিতে ধীর গতি, ওজন স্কেলের অব্যবস্থাপনা, ট্রাফিক পুলিশের সংখ্যা অপর্যাপ্ত ও ট্রাফিক আইন অমান্য করে উল্টো পথে যানবাহন চলাচল ও মহাসড়কে সংস্কার কাজ চলার কারণে এ যানজট সৃষ্টি হয়েছে।

মেঘনা সেতুর টোলপ্লাজার ওজন স্কেলে গিয়ে দেখা যায়, ধীরগতিতে পরিবহনের ওজন পরিমাপ করা হচ্ছে। শত শত ট্রাক ও লরি মহাসড়কের ওপর সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে আছে।

কাঁচপুর হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাইয়ুম আলী সরদার জানান, মহাসড়কে সংস্কার কাজ চলছে এবং গাড়ির চাপ বেড়ে যাওয়ায় মহাসড়কে যানজট সৃষ্টি হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী যানজট নিয়ন্ত্রণে কাজ করে যাচ্ছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শাহীনুর ইসলাম জানান, মহাসড়কে দীর্ঘ যানজটে মানুষের দুর্ভগের বিষয়টি প্রশাসনকে ভাবিয়ে তুলেছে। মহাসড়ক নিয়ন্ত্রণে পুলিশকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

ad