নারায়ণগঞ্জে নিখোঁজ স্বর্ণ ব্যবসায়ীর ৫ টুকরো লাশ উদ্ধার

Gold trader, 5 pieces, recovery of dead body,
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: নারায়ণগঞ্জের কালিরবাজারের নিখোঁজ স্বর্ণ ব্যবসায়ী প্রবীর চন্দ্র ঘোষের বস্তাবন্দী পাঁচ টুকরো এবং গলিত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

সোমবার (৯ জুলাই) দিবাগত রাত সাড়ে ১১টায় নিখোঁজের ২২ দিন পর নগরীর আমলাপাড়ার একটি সেপটিক ট্যাংক থেকে ওই মরদেহ উদ্ধার হয়।

তিনটি বস্তায় ভরা ওই লাশ ইতিমধ্যে পচে-গলে গেছে। এ ঘটনায় নিহত প্রবীরের ঘনিষ্ঠ বন্ধু ও স্বর্ণ ব্যবসায়ী পিন্টু হালদার ও তার সঙ্গী বাপন ওরফে বাবুকে আটকের পর তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী ওই লাশ উদ্ধার করা হয়। তবে হত্যার মূল কারণ এখনও জানা যায়নি।

নিহত স্বর্ণ ব্যবসায়ী প্রবীর ঘোষ শহরের কালীরবাজারের ভোলানাথ জুয়েলার্সের মালিক। গত ১৮ জুন থেকে নিখোঁজ ছিলেন তিনি। নিখোঁজের তিনদিন পর নিহতের ছোট ভাই বিপ্লব চন্দ্র ঘোষের মুঠোফোনে এক কোটি টাকা চেয়ে মুক্তিপণ দাবি করা হয়।

তার সন্ধান দাবিতে ২২ দিন ধরে বিভিন্ন সময়ে ব্যবসায়ী, নিহতের স্বজন, বিভিন্ন সংগঠন ও পরিবারের লোকজন মানববন্ধন ও সমাবেশ করে আসছিল। এরমধ্যে নিহতের পরিবার প্রশাসনের কাছে স্মারকলিপিও প্রদান করেছিলেন।

সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এম এ হক জানান, দুইদিন আগে প্রবীর চন্দ্র ঘোষের ব্যবসায়িক অংশীদার পিন্টু দেবনাথ ও তার এক বন্ধুকে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ আটক করে। তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী নিহত প্রবীরের ব্যবসা কেন্দ্র থেকে ৫০০ গজ দূরে পিন্টু দেবনাথের ভাড়াবাড়ির সেপটিক ট্যাংকে তল্লাশি চালিয়ে তিনটি বস্তায় তিন টুকরো লাশ উদ্ধার করা হয়। পুলিশের ধারণা, ব্যবসায়িক স্বার্থে তাকে হত্যা করা হয়েছে।

ad